সফটওয়্যার খাতকে লকডাউনের আওতামুক্ত রাখার দাবি জানিয়েছে সংশ্নিষ্ট ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড সার্ভিসেস (বেসিস)। আইসিটি বিভাগকে দেওয়া এক স্মারকলিপিতে এ দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। 

গত ৪ এপ্রিল দেওয়া এ স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, নতুন করে ঘোষিত লকডাউনে অফিস-আদালত, গণপরিবহন, যানবাহন ও চলাচলের উপর যে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে সফটওয়্যার ও সফটওয়্যার পরিষেবা এবং আউটসোর্সিং খাতকে জরুরি সেবার আওতায় রাখা হয়নি। এতে সফটওয়্যার ও সফটওয়্যার পরিষেবা এবং আউটসোর্সিং কাজে নিয়োজিত কোম্পানিগুলোর অফিস খোলা রাখা সম্ভব হবে না। এতে অনলাইনে প্রদত্ত জরুরি নাগরিক সেবা প্রদান সম্ভব না হওয়ায় গ্রাহকরা ভোগান্তিতে পড়বে। এছাড়া সফটওয়্যার ও আউটসোর্সিংয়ে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানকে দেশের বাইরের গ্রাহকদের নিরবচ্ছিন্ন সেবা প্রদান বিঘ্নিত হবে যাতে রফতানি আয় আশঙ্কাজনক হারে কমে যেতে পারে। এ অবস্থায় বেসিস সদস্য কোম্পানিকে জরুরি সেবার আওতায় এনে লকডাউনের মধ্যে অফিসিয়াল কার্যক্রম চালানোর সুযোগ দেওয়ার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। 

এ সম্পর্কে বেসিস সভাপতি আলমাস কবীর সমকালকে বলেন, দেশের অভ্যন্তরে বিভিন্ন ব্যাংকসহ সরকারি-বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ অফিসে জরুরি সেবা দিয়ে থাকে সফটওয়্যার সংশ্নিষ্ট কোম্পানিগুলো। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, ভিয়েতনামসহ বিশ্বের অনেক দেশ লকডাউন না থাকায় সেসব দেশের সঙ্গে আউটসোর্সিংয়ের কাজে যুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোকেও বেকায়দায় পড়তে হবে। আউটসোর্সিংয়ের কাজ সময় মতো গ্রাহককে বুঝিয়ে দিতে না পারলে এসব কাজ বাতিল হবে, অন্য প্রতিযোগী দেশগুলো সুযোগ নেবে। এজন্য সফটওয়্যার ও আউটসোর্সিং কোম্পানিগুলোকে জরুরি সেবা ঘোষণা করে লকডাউনের আওতার বাইরে রাখা প্রয়োজন।

মন্তব্য করুন