ফাস্টলি বলছে, সফটওয়্যার বাগের কারণে অফলাইনে চলে গিয়েছিল প্রথম সারির অনেক ওয়েবসাইট। মঙ্গলবারের ওই ইন্টারনেট বিভ্রাটের শিকার হয়েছিল অ্যামাজন, নিউ ইয়র্ক টাইমস, গার্ডিয়ান, টুইটার, টুইচসহ আরও অনেক খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানের সাইট।

সমস্যার সূত্রপাত হয় ফাস্টলির দিক থেকে। ক্লাউড কম্পিউটিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি নিজ সেবাগ্রহীতা ওয়েবসাইটগুলোকে দ্রুত লোড হওয়ার সেবা দিয়ে থাকে। পাশাপাশি ট্রাফিকের চাপ বেশি থাকলে ‘ডিনায়াল-অফ-সার্ভিস’ বা ডিডিওএসের হাত থেকেও সুরক্ষিত রাখে সাইটকে।

এরই মধ্যে বিভ্রাটের জন্য ক্ষমা চেয়েছে ফাস্টলি। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, এমনটা যে হতে পারে তা তাদের আগেই অনুমান করা উচিত ছিল। গোটা বিভ্রাটের দায় ফাস্টলি চাপিয়েছে সফটওয়্যার বাগের ঘাড়ে। তাদের ভাষ্য অনুসারে, মে মাসের মধ্যবর্তী সময় থেকে সফটওয়্যারে বাগ ছিল, পরে একজন গ্রাহক সেটিংস পরিবর্তন করে ফেললে সমস্যা শুরু হয়।

ফাস্টলি বলছে, সমস্যা শুরু হওয়ার ৪০ মিনিটের মধ্যেই সেটির সমাধান করেছেন প্রকৌশলীরা। ’৪৯ মিনিটের মাথায় আমাদের নেটওয়ার্ক স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরত আসে।’ – জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

বর্তমানে গোটা নেটওয়ার্কে ‘বাগ ফিক্স’ প্রয়োগ করছে ফাস্টলি। কেন সফটওয়্যারের গুণগত মান নিশ্চিত এবং পরীক্ষা প্রক্রিয়ার সময়টিতে বাগ ধরা পড়েনি তা নিয়েও তদন্ত করছে প্রতিষ্ঠানটি।


মন্তব্য করুন