বুধবার গুগলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের একদল অ্যাটর্নি জেনারেল।  তাদের অভিযোগ, গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের প্লে স্টোর অ্যান্টিট্রাস্ট আইন ভাঙছে।

প্লে স্টোরের মাধ্যমে ডিজিটাল পণ্য ও সেবা বিক্রি করলে ৩০ শতাংশ চার্জ রাখে গুগল। গোটা মামলায় ওই বিষয়টিকেই তুলে ধরা হয়েছে।  খবর সিনেটের।

পহেলা জুলাই থেকে ছোট ডেভেলপারদের কাছ থেকে চার্জ ১৫ শতাংশ কম নেবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে, ডেভেলপারদের বার্ষিক আয় ১ মিলিয়ন ডলারের মাইলফলক ছুঁলেই ৩০ শতাংশ করে কাটবে গুগল।
উল্লেখ্য, গত বছর অনেকটা একই অভিযোগে গুগলের বিরুদ্ধে মামলা ঠুকেছে এপিক গেইমস।

গুগলের বিরুদ্ধে ইউটাহ্’র অ্যাটর্নি জেনারেল শন ডে. রেয়েস এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘গুগলকে ছোট ব্যবসা ও ভোক্তাদের ক্ষতির দায় নিতে হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘তাদের অবশ্যই নিজেদের একচেটিয়া শক্তি ও উচ্চ আধিপত্য বিস্তারী বাজার অবস্থানের ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।’

গুগল এ ব্যাপারে মন্তব্যের অনুরোধে সাড়া দেয়নি। এক ব্লগ পোস্টে পুরো মামলাটিকে ‘মেধাহীন‘ আখ্যা দিয়েছেন তারা। প্রতিষ্ঠানটি আরও উল্লেখ করেছে, অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা চাইলেই প্রতিদ্বন্দ্বী স্টোর বা ডেভেলপারের সাইট থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

গুগলের পাবলিক পলিসি বিভাগের জ্যৈষ্ঠ পরিচালক উইলসন হোয়াইট এক ব্লগ পোস্টে লিখেছেন, ‘আমরা অন্য মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের মতো একই নিষেধাজ্ঞা দেই না। “ তিনি আরও লিখেছেন, “আর তাই এটি খুবই অবাক করার মতো যে একদল রাষ্ট্রীয় অ্যাটর্নি জেনারেল এমন এক প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন যা অন্যদের চেয়ে বেশি উন্মুক্ততা ও সুবিধা দেয়।’

সবমিলিয়ে নতুন মামলায় অংশ নেবেন ৩৬ অঙ্গরাজ্যের অ্যাটর্নি জেনারেল। পুরো দলটির নেতৃত্বে থাকবে ইউটাহ, নর্থ ক্যারোলাইনা, টেনেসি, নিউ ইয়র্ক, অ্যারিজোনা, কলোরাডো, আইওয়া এবং নেব্রাস্কার মতো অঙ্গরাজ্যগুলো।
যুক্তরাষ্ট্রে আগে থেকেই অ্যান্টিট্রাস্ট মামলার মুখে রয়েছে গুগল।  এর মধ্যে একটি মামলা দায়ের করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অফ জাস্টিস।             


বিষয় : গুগল মামলা যুক্তরাষ্ট্র অ্যাটর্নি জেনারেল

মন্তব্য করুন