ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ পরিবহনে ট্রান্সমিশন সেবার মূল্য নির্ধারণ নিয়ে দীর্ঘদিনের জটিলতার নিরসন হচ্ছে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ট্রান্সমিশন সেবার ট্যারিফ বা মূল্য নির্ধারণ করেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে এই ট্যারিফ ঘোষণা করা হবে বলে বিটিআরসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এর ফলে গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট সেবায় 'এক দেশ, এক রেট' বাস্তবায়নে আর কোনও সমস্যা থাকবে না বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এ মূল্য নির্ধারণকে টেলিযোগাযোগ খাতে গতিশীলতা আনতে বিটিআরসি'র একটি বড় ইতিবাচক পদক্ষেপ হিসেবেও বিবেচনা করছেন তারা।

বিটিআরসি সূত্র জানায়, ট্রান্সমিশন সেবার জন্য বিটিআরসির কয়েকটি ধাপে গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান(আইএসপি) এবং পাইকাড়ি ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ বিক্রেতা ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ে প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য মূল্য নির্ধারণ করেছে।

এই ধাপগুলো হচ্ছে, ১০ এমবিপিএস পর্যন্ত নিয়মিত সক্ষমতায়(রেগুলার ক্যাপাসিটি) সকল বিভাগীয় মহানগর সিটি কর্পোরেশন এলাকা(গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা সহ) এবং জেলা থেকে জেলায় প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ২০০ টাকা, সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা। এর বাইরে লংহলে(মহানগর এবং জেলা থেকে জেলার বাইরে) প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ৪০০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা।

১১ এমবিপিএস ৫০ এমবিপিএস, ৫১ থেকে ১০০ এমবিপিএস, ১০১ থেকে ২০০ এমবিপিএস, ২০১ থেকে ৩০০ এমবিপিএস ৩০১ থেকে ৪০০ এমবিপিএস এবং ৪০১ থেকে ৫০০ এমবিপিএস পর্যন্ত নিয়মিত সক্ষমতার ক্ষেত্রে সকল বিভাগীয় মহানগর সিটি কর্পোরেশন এলাকার জন্য(গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা সহ) প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ৪০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০০ টাকা, জেলা থেকে জেলায় প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ৮৫ টাকা থেকে ১৫০ টাকা এবং লংহলে প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ১১০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২০০ টাকা। এ ছাড়া ৫১০ থেকে ৬০০ এমবিপিএস, ৬০১ থেকে এক হাজার এমবিপিএস এবং ১০০১ এমবিপিএস থেকে ২ হাজার ৪৯৯ এমবিপিএস সক্ষমতার জন্য সকল বিভাগীয় মহানগর সিটি কর্পোরেশন এলাকার(গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা সহ) এবং জেলা থেকে জেলার জন্য প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ৪০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৯০ টাকা, আর লংহলে প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ৭০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ১২৫ টাকা।

ট্যারিফের উচ্চতর সক্ষমতার ধাপগুলোতে পৃথকভাবে মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। উচ্চতর ধাপটি ২ হাজার ৫০০ এমবিপিএস থেকে ১০০ জিবিপিএস প্লাস পর্যন্ত সক্ষমতায় ছয়টি ধাপে পৃথকভাবে মূল্য ধরা হয়েছে। এক্ষেত্রে সকল বিভাগীয় মহানগর সিটি কর্পোরেশন এলাকার(গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা সহ) জন্য প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ১৩ টাকা এবং সর্বোচ্চ ১৪ টাকা, জেলা থেকে জেলায় প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ১৩ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৫৫ টাকা, আর লং হলে প্রতি এমবিপিএস সর্বনিম্ন ২৫ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৭০ টাকা।

এ মূল্য নির্ধারণ সম্পর্কে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবির সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক সমকালকে বলেন, এতদিন পর ট্রান্সমিশন সেবার মূল্য নির্ধারণ একটা ইতিবাচক পদক্ষেপ। এর মধ্য দিয়ে ইন্টারনেট সেবা প্রদান আরও সহজ হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে দেশের বৃহত্তম বেসরকারি ট্রান্সমিশন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান (এনটিটিএন) ফাইবার অ্যাট হোমের রেগুলেটরি ও জনসংযোগ বিভাগের প্রধান আব্বাস ফারুক সমকালকে বলেন, এই মূল্য নির্ধারণের মধ্য দিয়ে ইন্টারনেট পরিবহনে ট্রান্সমিশন সেবায় আরও গতি আসবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। তবে এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট এনটিটিএন গাইডলাইন মেনে চলার বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থার গুরুত্ব দিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।