তুষার-তৃণার (ছদ্মনাম) হাসিখুশি সংসারে দমকা হাওয়া হয়ে আসে করোনা মহামারি। বেসরকারি চাকরিজীবী তুষারের বেতন অর্ধেক হয়ে যায় সেই ধাক্কাতে। আয়ের বিকল্প সংস্থান না থাকায় বাসা ভাড়া, বাজারের খরচ নিয়ে তখন এ দম্পতির কপালে ভাঁজ পড়ে। এর মধ্যেই গৃহিণী তৃণা বন্ধুদের মাধ্যমে জানতে পারেন দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান 'শিখবে সবাই' সম্পর্কে। এই প্রতিষ্ঠানে ৪ মাসের একটি কোর্স শেষে তৃণা নিজেকে পরিণত করেন একজন দক্ষ ফ্রিল্যান্সারে। সে দক্ষতা বাড়ানোর জন্যও কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। বর্তমানে গৃহস্থালি কাজের পাশাপাশি নিয়ম করে ৬ ঘণ্টা কাজ করছেন বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন মার্কেটপ্লেস ফাইভারে। ভালো রোজগারও হচ্ছে। সংগ্রামের দিনগুলো পেছনে ফেলে তুষার-তৃণা দম্পতি এখন স্বচ্ছল দিন পার করছেন।

'শিখবে সবাই' কর্তৃপক্ষ জানায়, তৃণার মতো দেশের শিক্ষিত জনগোষ্ঠীকে কর্মমুখী শিক্ষা দেওয়ার মাধ্যমে দক্ষ করে তোলাই তাদের প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্য। এ ছাড়াও বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং এনজিও'র সঙ্গে দক্ষতা উন্নয়নে কাজ করছে 'শিখবে সবাই'।

তারা আরও জানায়, ফ্রিল্যান্সারদের জন্য বাংলাদেশে প্রথম নিজস্ব সাপোর্ট প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। যেকোনো শিক্ষার্থী এই পল্গ্যাটফর্ম ব্যবহার করে দেশ-বিদেশের যেকোনো জায়গায় বসে নিজ সমস্যার সমাধান করে নিতে পারেন।

এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের ৬৪টি জেলার ১৩ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী অনলাইন এবং অফলাইন মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি থেকে বিভিন্ন কোর্স সম্পন্ন করেছেন। এর মধ্যে গ্রাফিক ডিজাইন, ইউআই/ইউএপ, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, পিএইচপি অ্যান্ড লারাভেল, ডিজিটাল মার্কেটিং, মোশন গ্রাফিক্স উল্লেখযোগ্য। শুধু বাংলাদেশই নয়, বিশ্বের অন্য ১১টি দেশের শিক্ষার্থীরা 'শিখবে সবাই' অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিভিন্ন কোর্স সম্পন্ন করেছেন। এ বছরের মধ্যে ১৫ হাজার এবং ২০২২ সালের মধ্যে ২৫ হাজার শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন আইটি দক্ষতা বাড়িয়ে কর্মক্ষম করে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত 'শিখবে সবাই' এর প্রধান কার্যালয় রাজধানীর বনানীতে। প্রতিষ্ঠানটির সাড়ে সাত হাজারের বেশি শিক্ষার্থী সফল ফ্রিল্যান্সার কাজ করছে স্বনামধন্য অনলাইন এবং অফলাইন মার্কেটপেল্গসে। এই প্রতিষ্ঠানের রয়েছে ৯০ হাজারের বেশি ফ্রিল্যান্সারদের ফেসবুক গ্রুপ 'ফ্রিল্যান্সার কমিউনিটি গ্রুপ'। এই ফ্রিল্যান্সার কমিউনিটি গ্রুপে করা পোস্ট অনুযায়ী 'শিখবে সবাই' এর শিক্ষার্থীদের মোট আয় ছাড়িয়েছে দেড় মিলিয়ন ডলার।