সুপারস্টার শাহরুখপুত্র আরিয়ান খানকে গ্রেপ্তার করে  নিজেই গ্রেপ্তার আতঙ্কে ভুগছেন বলে অভিযোগ করেছেন ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর (এনসিবি) আঞ্চলিক পরিচালক সমীর ওয়াংখেড়ে। মুম্বাই পুলিশ কমিশনারের কাছে চিঠি পাঠিয়ে এমন অভিযোগ জানিয়েছেন  তিনি। 

ইন্ডিয়া টুডের খবর, বলিউড বাবলসহ ভারতের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন জানিয়েছে, সেই চিঠিতে সমীর ওয়াংখেড়ে লিখেছেন, উচ্চপর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাদের কাছ থেকে চাকরিচ্যুত করা ও গ্রেপ্তার হওয়ার হুমকি পেয়েছেন তিনি। তাকে খারাপ উদ্দেশ্যে ফাঁসানো হতে পারে আশঙ্কা করে আইনি ব্যবস্থা না নিতে মুম্বাইয়ের শীর্ষ পুলিশকর্তার কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে নিরাপত্তা দেওয়ার অনুরোধও করেন।

এর আগে শাহরুখপুত্রের বিরুদ্ধে সাক্ষী দিতে ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ ওঠে সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে। অভিযোগ তোলেন মামলার অন্যতম সাক্ষী প্রভাকর সেইল।

এনসিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রভাকর সেইলকে সাক্ষী হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, প্রভাকর সেইল মুম্বাই পুলিশকে বলেছেন, প্রমোদতরীতে তল্লাশি চালানোর দিন এনসিবি ১০ পাতার একটি সাদা কাগজে তার সই নিয়েছে। আরিয়ানের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য মোটা অংকের অর্থ দেওয়ারও প্রস্তাব দেওয়া হয়। প্রভাকরের এই কথার কারণেই আতঙ্কে ভুগছেন সমীর ওয়াংখেড়ে।

তিন বার বিশেষ এনডিপিএস আদালতে বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানের জামিন আবেদন নাকচ হওয়ার পর মুম্বাই হাইকোর্টে ২৬ অক্টোবর আরিয়ানের জামিন শুনানির দিন নির্ধারিত হয়েছে। জানা গেছে, এ দিনও আরিয়ান খানের জামিন আবেদনের বিরোধিতা করবে এনসিবি।

মাদককাণ্ডে দীর্ঘ ১৬ ঘণ্টা জেরার পর ৩ অক্টোবর বিকেলে আরিয়ান খানকে গ্রেপ্তার দেখায় এনসিবি। আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি এনডিপিএসের ৮সি, ২০বি, ২৭, ২৯ ও ৩৫ ধারায় মামলা করা হয়েছে।

মুম্বাইয়ের উপকূলে একটি প্রমোদতরীতে চলমান মাদক পার্টি থেকে ২ অক্টোবর রাতে আরিয়ান খানসহ মোট আট জনকে আটক করে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। যাত্রীর ছদ্মবেশে কর্ডেলিয়া নামে বিলাসবহুল ওই প্রমোদতরীতে চেপে বসেছিলেন এনসিবির গোয়েন্দারা।