সম্প্রতি দেশের বাজারে অপো নিয়ে এসেছে জনপ্রিয় রেনো সিরিজের নতুন ফোন রেনো ৬। এখন চলছে ফোনটির প্রি-বুকিং। বাজারে আসার পর থেকে রেনো ও অপো ভক্তদের মাঝে ইতিবাচক সাড়া ফেলেছে ফোনটি। 

রেনো সিরিজের নতুন এই ফোনটিতে বরাবরের মতো এবারও উদ্ভাবনী ও দুর্দান্ত ফিচার নিয়ে এসেছে অপো। রেনো ৬ এর সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হচ্ছে, এতে রয়েছে উন্নত প্রযুক্তির ফটোগ্রাফি ও ক্যামেরা ফিচার। ফোনটির সিনেম্যাটিক বোকেহ ফ্লেয়ার ফিচার ফটোগ্রাফি প্রিয় মানুষকে নতুন অভিজ্ঞতা দেবে। চলুন এই ফোনটির বিশেষ ফিচারগুলো জেনে নেয়া যাক-

চোখ ধাঁধাঁনো রেনো গ্লো ডিজাইন:
বরাবরের মতো রেনো ৬ ফোনটির ডিজাইন করা হয়েছে রেনো গ্লো দিয়ে যা দেখতে খুবই আকর্ষণীয়। হালকা-পাতলা রাখতে ফোনটির পুরুত্ব রাখা হয়েছে মাত্র ৭.৮ মিলিমিটার ও ওজন মাত্র ১৭৩ গ্রাম। ফলে খুব সহজেই যে কেউ যে কোনো পরিস্থিতিতে ফোনটিকে তালুবন্দি করতে পারবেন। অতিরিক্ত ব্যবহারেও ফোনটি থাকবে নতুনের মতো। কারণ, এতে রয়েছে স্ক্যাচ প্রতিরোধক। ফোনটির পেছনের অংশে ব্যবহার করা হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট। দুই স্তরের কালার টোনের কারণে ফোনটি দেখতে দারুণ।

৬৪ মেগাপিক্সেল এআই কোয়াড-ক্যামেরা:
বলা হয়ে থাকে, ফটোগ্রাফির জন্য অপোর রেনো সিরিজের আলাদা সুনাম রয়েছে। এবারের সিরিজের ফোনটিও এর ব্যতিক্রম নয়। চমৎকার ছবি তোলার জন্য ফোনটিতে রাখা হয়েছে ৬৪ মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা সেট আপ। আছে শক্তিশালী এআই হাইলাইট ভিডিও। এর সাথে যদি সিনেম্যাটিক বোকেহ ফ্লেয়ার পোর্ট্রটে থাকে তাহলে তো আর কথা নাই।

কম্পিউটেশনাল ফটোগ্রাফি টেকনিক ব্যবহার করে অপো সিনেম্যাটিক বোকেহ ফ্লেয়ার নিয়ে এসেছে। এটা আপনার স্মার্টফোনে ফটোগ্রাফির অভিজ্ঞতায় আমূল পরিবর্তন নিয়ে আসবে। সেলফিপ্রেমীদের জন্য এর ক্যামেরায় রয়েছে সলিড ৪৪ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। এই ক্যামেরা যেকোনো আলোতে নিখুঁত ছবি পাওয়া যাবে। ইউটিউবে ভিডিও করার জন্য রেনো ৬ এ আছে এআই হাইলাইট ভিডিও ফিচার। পছন্দমতো পোর্ট্রটে স্টাইল বাছাই করে এআই প্যালেটে সিঙ্গেল ক্লিক করে দারুণ সব ছবি পাওয়া যাবে।

বড় ব্যাটারি + ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট:
কেউ যদি মোবাইলে গেম খেলতে পছন্দ করেন ও একটানা ফোন ব্যবহারে অভ্যস্ত হন তাহলে তার জন্য রেনো ৬ যুঁতসই একটা ফোন। এর বর্ধিত ব্যাটারি লাইফ, ব্যাটারি সম্পর্কিত নানা ফিচার ও হাই রিফ্রেশ রেট ফোন ব্যবহারে নিঃসন্দেহে মানুষের অভিজ্ঞতা সমৃদ্ধ করবে। ৪৩১০ এমএইচ ব্যাটারি থাকার কারণে ফোনটির চার্জ যেমন দেরিতে ফুরাবে তেমনি ৫০ ওয়াটের ফ্লাশ চার্জ থাকার কারণে দ্রুত চাজিং হবে। ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট থাকার কারণে টানা ব্যবহারেও কোথাও ফোনটি আটকাবে না। মাত্র ৪৮ মিনিটে ফোনটি শতভাগ চার্জপ্রাপ্ত হবে। সুপার পাওয়ার সেভিং মুড থাকার কারণে মাত্র ৫% চার্জ থাকলেও ন্যাভিগেশন অ্যাপ ব্যবহার করে সবার সাথে সংযুক্ত থাকা যাবে। সুপার নাইটটাইম স্ট্যান্ডবাই মোড থাকার কারণে রাতের বেলায় মাত্র ৩% চার্জ খরচ হবে।

আরও যা যা থাকছে:
১. বর্তমানে ফোন গরম হয়ে যাওয়া অনেকের ভোগান্তিতে পড়তে হয়। মাল্টি কুলিং সিস্টেম থাকার কারণে রেনো ৬ সহজে গরম হবে না।

২. র‌্যাম এক্সপ্যানশন প্রযুক্তি থাকার কারণে ৩জিবি/৫জিবি/৭জিবি পর্যন্ত মেমোরি বাড়ানো সম্ভব।

৩. হালনাগাদ অপারেটিং সিস্টেম কালারওএস থাকার কারণে রেনো ৬ এ প্রিমিয়াম অভিজ্ঞতা পাওয়া সম্ভব। পছন্দমতো ফিচার যোগ করে নেওয়া যাবে। সারাদিনের কর্মব্যস্ত দিন শেষে ‘ও রিল্যাক্স’ অ্যাপ ন্যাচারাল সাউন্ড দিয়ে শরীর ও মনকে শান্ত করবে।

৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি রম সম্বলিত রেনো ৬ দুই কালারে বাজারে পাওয়া যাবে। স্টাইলিশ অরোরা ও স্টেলা ব্ল্যাক কালারের ফোনটির দাম পড়বে ৩২,৯৯০ টাকা।