দুই স্তরের নিরাপত্তা সুবিধা চালুর জন্য প্রথমেই মোবাইল ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ চালু করে ডান পাশের ওপরে থাকা তিনটি ডট মেন্যুতে ক্লিক করতে হবে। এবার সেটিংসে ক্লিক করে অ্যাকাউন্ট অপশন নির্বাচন করতে হবে। এরপর টু স্টেপ ভেরিফিকেশন নির্বাচন করে এনাবল বাটনে চাপ দিতে হবে। এবার ছয় সংখ্যার পিন নম্বর দু'বার লেখার পর ই-মেইল ঠিকানা দিয়ে নেক্সট বাটন চাপতে হবে। ই-মেইল ঠিকানা নিশ্চিত করে সেইভ বাটন চাপলেই দুই স্তরের নিরাপত্তা সুবিধা চালু হবে।

ডিজঅ্যাপেয়ারিং ফিচার
বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপে ডিজঅ্যাপেয়ারিং ফিচার চালু করা হয়েছে। সম্প্রতি হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, তারা সব বার্তা ক্ষণস্থায়ী করার পরিকল্পনা করছে এবং খুব দ্রুতই এতে আপডেট নিয়ে আসবে। ডিজঅ্যাপেয়ারিং ফিচারের নতুন আপডেটের মাধ্যমে ব্যবহারকারী চাইলে অপর প্রান্তে পাঠানো বার্তা সরিয়ে ফেলতে পারবেন। ফলে ব্যক্তিগত গোপনীয়তা নিশ্চিত করা যাবে।

'ভিউ ওয়ানস' ফিচার
মেসেজের গোপনীয়তা রক্ষায় হোয়াটসঅ্যাপে চালু হয়েছে 'ভিউ ওয়ানস' ফিচার। ইনস্টাগ্রামের মতো হোয়াটসঅ্যাপেও ফিচারটি চালু করেছে ফেসবুক। এর ফলে ফিচারটি ব্যবহারকারী হোয়াটসঅ্যাপে কোনো ছবি বা ভিডিও পাঠালে প্রাপক শুধু একবার দেখার পরই তা স্বয়ংক্রিয় মুছে যাবে। যে কোনো সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ছবি বা ভিডিও পাঠালে তা সেভ, সংরক্ষণ কিংবা শেয়ার করা যাবে না। এমনকি ফোনে সেভিং অপশন চালু থাকলেও ওই ভিডিও বা ছবি সেভ হবে না। এ ছাড়া এ ফিচারের মাধ্যমে পাঠানো কোনো ফাইল যদি ১৪ দিনের মধ্যে না খোলা হয়, তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডিলিট হয়ে যাবে। হোয়াটসঅ্যাপ লোগোর মতো সবুজ রঙের বৃত্ত দিয়ে ফিচারটিকে চিহ্নিত করা হয়েছে।

ব্লক করুন
আপনি নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে ব্লক করে তার পাঠানো মেসেজ, কল ও স্ট্যাটাস আপডেট গ্রহণ করা বন্ধ করতে পারবেন। আপনি যদি মনে করেন কোনো পরিচিত ব্যক্তি ক্ষতিকারক কনটেন্ট অথবা স্প্যাম পাঠাচ্ছেন, তাহলে আপনি তার বিষয়ে রিপোর্টও করতে পারবেন।

গ্রুপের অ্যাডমিন কন্ট্রোল
গ্রুপের যে কোনো অ্যাডমিন ওই গ্রুপের যে কোনো সদস্যকে অ্যাডমিন করতে পারবেন। একটি গ্রুপে যে কোনো সংখ্যক অ্যাডমিন থাকতে পারে। যিনি গ্রুপ তৈরি করেছেন, তাকে সরানো যাবে না এবং তিনি নিজে গ্রুপ থেকে বেরিয়ে না যাওয়া পর্যন্ত অ্যাডমিন থাকবেন। কে বা কারা গ্রুপে বার্তা পাঠাতে পারবেন, তা অ্যাডমিন নির্ধারণ করে দিতে পারবে।