অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর অন্তর্বর্তীকালীন টুইটারের প্রধান নির্বাহীর (সিইও) পদে নিজেই বসতে যাচ্ছেন মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্ক। ধারণা করা হচ্ছিল, সম্প্রতি চার হাজার চারশ কোটি ডলারে ইলন মাস্কের কাছে মাইক্রোব্লগিং প্ল্যাটফর্মটির পরিচালনা পর্ষদ বিক্রির বিষয়ে একমত হলে বর্তমান প্রধান নির্বাহী পরাগ আগরওয়ালকে সরিয়ে দেওয়া হবে। রয়টার্সের এক প্রতিবেদন এ ধারণাকেই প্রতিষ্ঠিত করতে যাচ্ছে।

এদিকে টুইটারের প্রধান নির্বাহী হতে যাচ্ছেন মাস্ক- এমন খবর প্রকাশের পর গত বৃহস্পতিবার টেসলার শেয়ারের দাম ৮ শতাংশ কমেছে। মূলত টুইটার অধিগ্রহণে মোটা অঙ্কের অর্থ খরচের কারণে বিশ্বের সবচেয়ে দামি গাড়ি নির্মাতা কোম্পানির পরিচালনায় ধারাবাহিকতা বিনষ্ট হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন টেসলার বিনিয়োগকারীরা। এ কারণে দাম পড়ছে কোম্পানিটির। তবে এতে মোটেই দমছেন না মহাকাশ গবেষণাভিত্তিক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্সের প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ক। এদিকে টেসলার শেয়ারের দাম কমলেও টুইটারের শেয়ারের দাম বাড়ছে।

এ সময় টুইটারের শেয়ারের দাম ৪ শতাংশ বেড়েছে। গত নভেম্বরে টুইটারের প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব নিয়েছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত পরাগ আগরওয়াল। তবে তিনি শুরু থেকেই 'মাস্কবিরোধী' অবস্থান নিয়েছিলেন। ইলন মাস্ক যেন টুইটার অধিগ্রহণ করতে না পারেন, এ জন্য বিনিয়োগকারীদের আহ্বান জানিয়েছিলেন তিনি। ওই আহ্বানে সাড়া দিয়ে টুইটারের ১৮৯ কোটি ডলারের শেয়ারের মালিক সৌদি রাজপুত্র আল ওয়ালিদ বিন তালাল মাস্কের প্রস্তাব পাওয়ার পর বলেছিলেন, তিনি তার শেয়ার বিক্রি করবেন না।

তবে তিনি সুর পরিবর্তন করে বলছেন, টুইটারের জন্য 'অসাধারণ নেতা' হবেন মাস্ক। নিজের শেয়ার বিক্রি করতেও এখন রাজি তিনি। রয়টার্স জানিয়েছে, ১৯ জন বিনিয়োগকারী থেকে ২ হাজার ৭২৫ কোটি ডলার বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি পেয়েছেন মাস্ক। পাশাপাশি এক হাজার ৩০০ কোটি ডলার ঋণের প্রতিশ্রুতি পেয়েছেন মাস্ক। অন্যদিকে ১০০ কোটি ডলারের তহবিলের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন টেসলার পরিচালনা পর্ষদের সদস্য এবং মাস্কের বন্ধু ল্যারি এলিসন। প্রযুক্তি প্রতিদিন ডেস্ক