চিপের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ান প্রযুক্তি জায়ান্ট স্যামসাং। এ লক্ষ্যে স্যামসাং নির্মিত চিপ ক্রেতাদের সঙ্গে আলাপ শুরু করেছে কোম্পানিটি। ব্লুমবার্গের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, ক্রেতাদের কাছে চিপের দাম ২০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে স্যামসাং। চলতি বছরের দ্বিতীয়ার্ধে অর্থাৎ জুলাই মাস থেকে চিপের দাম বৃদ্ধি কার্যকর করতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। মূলত চিপ উৎপাদনে কাঁচামালসহ আনুষঙ্গিক খরচ বৃদ্ধিতে দাম বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে স্যামসাং। চিপের ধরনের ওপর ভিত্তি করে চুক্তিভিত্তিক তৈরি খরচ ১৫ থেকে ২০ শতাংশ বাড়াতে পারে স্যামসাং। এ ছাড়া ক্ষেত্র বিশেষে আরও বাড়তে পারে। ইতোমধ্যে স্যামসাং কিছু ক্রেতার সঙ্গে দাম বৃদ্ধির বিষয়টি নিয়ে সমঝোতায় এসেছে।

এছাড়া অন্যদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। স্যামসাং মূলত তাইওয়ান সেমিকন্ডাক্টর ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির (টিএসএমসি) পর দ্বিতীয় শীর্ষ চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। করোনা মহামারির প্রভাবে বিশ্বজুড়ে চিপ সংকটের পাশাপাশি চাহিদা বৃদ্ধিতে নির্মাতাদের ওপর বাড়তি চাপ পড়েছে। চিপ সংকটে স্মার্ট ডিভাইস, অটো মোবাইলসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক পণ্য চাহিদা মতো তৈরি করতে পারছে না বিশ্বের শীর্ষ প্রতিষ্ঠানগুলো। চিপ সরবরাহে বাড়তি চাপ সামলাতেই হিমশিম খাচ্ছে চিপ নির্মাতা কোম্পানিগুলো। এরই প্রেক্ষাপটে সিমের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনা করছেন নির্মাতারা।

টিএসএমসি আভাস দিয়েছে চলতি প্রান্তিকে তাদের উৎপাদন ৩৭ ভাগ বাড়তে পারে। স্যামসাংও উৎপাদন বাড়াচ্ছে। তবে স্যামসাং গত মাসেই ক্রেতাদের জানিয়ে দিয়েছিল, উৎপাদন সক্ষমতার চেয়ে তাদের চিপের চাহিদা বেশি রয়েছে। আগামী কয়েক মাসজুড়ে সরবরাহে এ ঘাটতি অব্যাহত থাকবে বলেও সতর্কবার্তা দিয়েছিল কোম্পানিটি। তবে সর্বশেষ দাম বাড়ানোর বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি স্যামসাং। এদিকে, সংশ্নিষ্টরা বলছেন, দাম বৃদ্ধিতে স্মার্টফোনসহ চিপনির্ভর ডিভাইসের দাম বাড়বে।