যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ওরাকল করপোরেশন চলতি বছরের ডিসেম্বরে বাংলাদেশে চালু করতে যাচ্ছে 'ওরাকল একাডেমি'। এ একাডেমির মাধ্যমে ওরাকল বিনামূল্যে সফটওয়্যার, ক্লাউড কম্পিউটিংসহ তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর বিভিন্ন বিষয়ে তরুণদের দক্ষ করে তুলতে প্রশিক্ষণ উপকরণ সরবরাহের পাশাপাশি প্রশিক্ষণ প্রদান করে থাকে। সিঙ্গাপুরে অবস্থিত ওরাকল অফিসে গত শুক্রবার আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে এ আগ্রহের কথা জানান প্রতিষ্ঠানটির জাপান ও এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রেসিডেন্ট মি. গ্যারেট।

পাশাপাশি আইসিটি বিভাগের সঙ্গে যৌথ অংশীদারিত্বে বাংলাদেশ আয়োজন করবে জাতীয় পর্যায়ের হ্যাকাথন। কম্পিউটার হার্ডওয়্যার সিস্টেম এবং এন্টারপ্রাইজ সফটওয়্যার পণ্যভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানটি ২০২০ সালের শুরুর দিকে বাংলাদেশে অফিস স্থাপন করেছে। পাশাপাশি বাংলাদেশের ই-গভর্নম্যান্ট অ্যাপ্লিকেশনের জন্য জি-ক্লাউড স্থাপনে ফোর টায়ার ডাটা সেন্টারেও বিনিয়োগ করেছে কোম্পানিটি। বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলে ছিলেন স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সামি আহমেদ, ওরাকল ক্লাউড প্ল্যাটফর্মের জ্যেষ্ঠ বিক্রয় ব্যবস্থাপক অ্যানি টিও প্রমুখ। বৈঠকের পর ওরাকলে কর্মরত বেশ কয়েকজন বাংলাদেশির সঙ্গে দেখা করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।

সিঙ্গাপুরে ম্যারিনা বে-তে 'হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিক ডিজিটাল ইনোভেশন কংগ্রেস' শীর্ষক তিন দিনের সম্মেলনে অংশগ্রহণের পাশাপাশি দেশটির বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেন। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী একটি কারিগরি সেশনে প্রধানমন্ত্রীর '২০৪১ সালের জ্ঞানভিত্তিক, উদ্ভাবনী, উন্নত অর্থনীতির স্মার্ট বাংলাদেশ' বিনির্মাণের কর্মপরিকল্পনা ও ডিজিটাল বাংলাদেশের সফলতা তুলে ধরেন। এ সময় তিনি বলেন, ২০৩১ সালের মধ্যে এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও উচ্চ-মধ্য আয় নিশ্চিতকরণ এবং ২০৪১ সাল নাগাদ জ্ঞানভিত্তিক, উচ্চ অর্থনীতির উন্নত, সমৃদ্ধ দেশে রূপান্তরের লক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। এর ফলে মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়াবে ১২ হাজার ৫০০ ডলার। গড়ে উঠবে স্মার্ট বাংলাদেশ। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবহন, যোগাযোগের ক্ষেত্রে দ্রুত পরিবর্তন আসবে। সম্মেলন গত শুক্রবার শেষ হয়।

বিষয় : ওরাকল করপোরেশন ক্লাউড কম্পিউটিং কম্পিউটার হার্ডওয়্যার সিস্টেম

মন্তব্য করুন