সৌরজগতের বাইরে অভিযান চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ সংস্থা নাসার প্রোব ভয়েজার-১ ও ২। সূর্যের সীমানার বাইরের পরিবেশ সম্পর্কে জানতে মহাকাশযান দুটি পাঠানো হয় ১৯৭৭ সালে। সেই থেকে মহাজাগতিক নানা তথ্য পাঠাচ্ছিল এই প্রোবজোড়া। হঠাৎ করেই এর একটির আচরণ বদলে গেছে। ভৌতিক সব তথ্য পাঠাচ্ছে ভয়েজার-১। এতে হতভম্ভ নাসার বিজ্ঞানীরা। তাঁরা এ নিয়ে কোনো কূলকিনারা করতে পারছেন না। বিজ্ঞানীরা বলছেন, 'প্রবীণ' প্রোব দুটির সঙ্গে যোগাযোগ এখনও অক্ষুণ্ণ আছে।

নিয়ন্ত্রণও করা যাচ্ছে যথারীতি, কিন্তু চলার গতি বদলে গেছে ভয়েজার-১ এর। এটি এখন নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে অজানা স্থানে অবস্থান করছে। কোনো ত্রুটি ধরা না গেলেও এর পাঠানো তথ্যগুলো রহস্যজনক। তবে ভয়েজার-২ এর আচরণ স্বাভাবিক। আমাদের ছায়াপথে আরও সৌরজগৎ ও গ্রহ আছে কিনা এবং অজানা বস্তুগুলো সম্পর্কে বিশদ তথ্য সংগ্রহে পাঠানো হয় ভয়েজার-১ ও ২। ১৯৭৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর ও ২০ আগস্ট মহাশূন্যে উড়ে যায় প্রোব দুটি। ১২ মাসের মধ্যে সূর্যের সীমানা পেরিয়ে যায় এবং ২০১২ সালে নক্ষত্রমণ্ডলে ঢুকে যায় ভয়েজার-১। পৃথিবী থেকে এর বর্তমান দূরত্ব প্রায় দুই হাজার ৩৫০ কোটি কিলোমিটার। সূত্র :সায়েন্স অ্যালার্ট।