বিটিআরসির হিসাবে দেশে বর্তমানে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট গ্রাহক এক কোটি ২৪ লাখেরও বেশি। ন্যূনতম মাসে ৫০০ টাকায় (৫ এমবিপিএস গতি) ইন্টারনেট কিনতে পারেন গ্রাহক। তবে প্রস্তাবিত বাজেটে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগে অপরিহার্য অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল আমদানিতে নতুন করে ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। পাশাপাশি ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবসায়ীদের দিতে হবে ১০ শতাংশ এআইটি। এতে গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট ব্যবহারে খরচ বাড়তে পারে।

২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, দেশে বর্তমানে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল তৈরির কারখানা গড়ে উঠেছে। পণ্যটি আমদানিতে ১৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক বিদ্যমান রয়েছে। দেশীয় শিল্পের অধিকতর সুরক্ষার লক্ষ্যে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল আমদানিতে ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করার প্রস্তাব করছি। অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল আমদানিতে বাড়তি শুল্ক আরোপ করায় ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহারে খরচ বাড়তে পারে।

ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহায়ীদের সংগঠন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) সভাপতি ইমদাদুল হক সমকালকে বলেন, দেশে যে ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল তৈরি হচ্ছে তা অধিকাংশ ক্ষেত্রে মানসম্মত নয়, পাশাপাশি চাহিদার তুলনায়ও কম। এক্ষেত্রে ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবলে সম্পূরক শুল্ক আরোপ করায় এখনকার দামে ইন্টারনেট সেবা দেওয়া কঠিন হবে।