চাঁদের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছে বহুল প্রতীক্ষিত নাসার খুদে মহাকাশযান 'ক্যাপস্টোন কিউবসেট' স্যাটেলাইট। গতকাল নিউজিল্যান্ডের মাহিয়া উপদ্বীপের লঞ্চ কমপ্লেক্স ১ থেকে ২৫ কেজি ওজনের 'কিউবসেট' স্যাটেলাইটটি উৎপেক্ষপণ করা হয়। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২৩ নভেম্বর স্যাটেলাইটটি চাঁদের কক্ষপথে প্রবেশ করবে। নাসার সঙ্গে এ মিশনে কাজ করছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রকেট ল্যাব।

নাসা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, 'আর্টেমিস' প্রকল্পের অংশ হিসেবে ২০২৫ সালে চাঁদের বুকে মানুষ পাঠানোর মিশন নিয়ে কাজ করছে তারা। এ মিশনে প্রথমবারের মতো চাঁদে নারী অভিযাত্রী পাঠানোর পরিকল্পনা রয়েছে নাসার। এ মিশনের অংশ হিসেবে চাঁদে পাঠানো হলো কিউবসেটটি। লাল গ্রহখ্যাত মঙ্গলের উদ্দেশে অভিযানের প্রথম ধাপ হিসেবে দেখা হচ্ছে নাসার নতুন চন্দ্রাভিযানকে। ক্যাপস্টোন মূলত চাঁদের কক্ষপথের গতিশীলতা উদ্ভাবনী নেভিগেশন প্রযুক্তির মাধ্যমে যাচাই করে ভবিষ্যতের মহাকাশযানের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করবে।

ক্যাপস্টোন উৎক্ষেপণের পর উচ্ছ্বসিত নাসার রকেট উৎক্ষেপণ সেবা বিভাগের পরিচালক ব্রাডলি স্মিথ বলেন, খুবই ভালোভাবে উৎক্ষেপণ সম্পন্ন হয়েছে। এটা সত্যিই অসাধারণ অভিজ্ঞতা। আমরা এখন স্যাটেলাইটটির চাঁদের কক্ষপথে পৌঁছানোর অপেক্ষায় আছি। নাসা এর আগে অস্ট্রেলিয়ার নর্দান টেরিটরি থেকে তিনটি সাউন্ডিং রকেটের প্রথমটি উৎপেক্ষপণ করে। এজন্য ৫০ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে কোনো বাণিজ্যিক লঞ্চপ্যাড ব্যবহার করেছে সংস্থাটি। নাসার রকেটটি উৎক্ষেপণের পরপরই নতুন ঘোষণা দেয় নিউজিল্যান্ড কর্তৃপক্ষ।
হপ্রযুক্তি প্রতিদিন ডেস্ক