বিশ্বের শীর্ষ ধনকুবের টেসলা প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্ক ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে টুইটার অধিগ্রহণে চুক্তি সম্পন্ন করেছিলেন। অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া ঠিকঠাকই চলছিল। তবে স্প্যাম ও নকল অ্যাকাউন্ট বেশি থাকার অজুহাতে টুইটার অধিগ্রহণ থেকে সরে গেছেন খেয়ালি মাস্ক। এতে করে বেকায়দায় পড়ে গেছে জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগিং প্ল্যাটফর্মের পরিচালনা পর্ষদ। কেননা এ অধিগ্রহণ চুক্তি সম্পন্ন করতে গিয়ে গত তিন মাসে তিন কোটি ডলারের বেশি বাড়তি খরচ হয়েছে প্ল্যাটফর্মটির। এখন ইলন মাস্ক তো টুইটার কিনছেনই না, উল্টো বাড়তি খরচের চাপ পড়েছে টুইটার পরিচালনা পর্ষদের ওপর।

মূলত চলতি বছরের এপ্রিল থেকে জুন মাসের মধ্যে ইলন মাস্কের প্রস্তাবিত চুক্তির পেছনে প্রায় ৩ কোটি ৩০ লাখ ডলার খরচ করে টুইটার। ওই সময় টুইটারের গড়ে দৈনিক ব্যবহারকারী সংখ্যা বেড়ে ২৩ কোটি ৭০ লাখ হলেও মাধ্যমটির ক্ষতি হয়েছে ২৭ কোটি ডলার। মোটা অঙ্কের এ গচ্চা সামলাতে মাস্ককে যে কোনোভাবে টুইটার অধিগ্রহণে বাধ্য করতে চায় প্ল্যাটফর্মটির পরিচালনা পর্ষদ। এ জন্য আদালতে মামলাও ঠুকে দিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। টুইটার অধিগ্রহণ চুক্তি অনুযায়ী, কোনো পক্ষ এ চুক্তি বাতিল করলে ১০০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। মামলার শুনানি শেষে আগামী অক্টোবরে রায় ঘোষণা করবেন আদালত। ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে এ রায়ের দিকেই তাকিয়ে টুইটার।