চলতি বছর শুধু জুলাই মাসে ভারতে ২২ লাখ ১০ হাজার অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ করেছে মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম হোয়াটসঅ্যাপ। হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারবিধি লঙ্ঘন এবং ভারতীয় আইন ভাঙার অভিযোগে এসব অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

সম্প্রতি হোয়াটসঅ্যাপ প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যাচ্ছে, ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি আইন-২০২১ মেনে প্রতি মাসে এ তথ্য প্রকাশ করছে মেসেজিং প্ল্যাটফর্মটি।

হোয়াটসঅ্যাপের এক মুখপাত্র বলেন, আমাদের মেসেজিং প্ল্যাটফর্মের অপব্যবহার রোধে আমরা সব সময়ই সচেষ্ট। ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি আইন মেনেই আমরা জুলাই মাসের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছি। গ্রাহকের কাছ থেকে কী ধরনের অভিযোগ জমা পড়েছে এবং ওই অভিযোগের ভিত্তিতে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে; প্রতিবেদনে এ সম্পর্কেও বিস্তারিত রয়েছে। এ ছাড়া অপব্যবহার ঠেকাতে প্ল্যাটফর্মের নিজস্ব প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কেও জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে। ভুয়া ব্যবহারকারীকে শনাক্তে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসহ একাধিক প্রযুক্তি ব্যবহার করছে হোয়াটসঅ্যাপ। এ জন্য ডেটা সায়েন্টিস্ট, অ্যানালিস্ট, গবেষক ও বিশেষজ্ঞের পাশাপাশি আইনজীবীরাও কাজ করছেন প্ল্যাটফর্মটিতে।

এদিকে ব্যবহারকারীদের জন্য নতুন চ্যাটবট আনার ঘোষণা দিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। প্ল্যাটফর্মটির নতুন নতুন ফিচার সম্পর্কে জানিয়ে ব্যবহারকারীদের নোটিফিকেশন দেবে এ চ্যাটবট। বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপে নতুন কোনো ফিচার যুক্ত হলে বেশিরভাগ ব্যবহারকারীর জানার সুযোগ নেই। এতে ব্যবহারকারী ও কোম্পানি দুই পক্ষই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ সমস্যার সমাধানে আসছে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটবট। হোয়াটসঅ্যাপে এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন ফিচার থাকায় নিরাপদ মেসেজিংয়ে অ্যাপটি বিশ্বজুড়ে দারুণ জনপ্রিয়।