প্রস্তাবিত ‘স্মার্ট সোসাইটি’ ও আইসিটি বিভাগের অধীন বাস্তবায়িত ‘ডিজিটাল আইল্যান্ড মহেশখালী’ প্রকল্প বিষয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই সভায় মহেশখালী ও সেন্টমার্টিনের সঙ্গে সন্দ্বীপ ও ভাসানচর এলাকাকে প্রস্তাবিত ‘স্মার্ট সোসাইটি’ প্রকল্পের আওতাভুক্ত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বৃহস্পতিবার আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এই সভায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সভাপতিত্ব করেন।

সভায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক রনজিৎ কুমার, ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেন ফর মাইগ্রেশনের (আইওএম) সিনিয়র রিজনাল মাইগ্রেশন অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যান্ড প্রোটেকশন স্পেশালিস্ট পেপি কি. সিদ্দিক , বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউএন মাইগ্রেশনের ডেপুটি চিফ অব মিশন ফাতেমা নুসরাত গাজ্জালি, সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার দিসা ফারুক, কোরিয়া ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন এজেন্সি (কোইকা) বাংলাদেশের প্রোগ্রাম ম্যানেজার চোই জিনবো, বিসিসি’র অপারেশন ম্যানেজার জাহিদ নেওয়াজ ফিরোজ, আইসিটি বিভাগ ও বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় প্রস্তাবিত ‘স্মার্ট সোসাইটি’ শীর্ষক প্রকল্পের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এবং বাস্তবায়িত ডিজিটাল আইল্যান্ড মহেশখালী প্রকল্পের বর্তমান অবস্থা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

এ বিষয়ে যাবতীয় কার্যক্রম অতিদ্রুত সম্পন্ন করার জন্য বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়।

আইসিটি বিভাগ, আইওএম এবং কোইকা দুই মাসের মধ্যে এ বিষয়ে সম্ভাব্যতা যাচাই করে প্রতিবেদন প্রদান করবে।

এ প্রকল্পের মাধ্যমে উক্ত এলাকাসমূহে উচ্চগতির ইন্টারনেট, প্রযুক্তি সুবিধা, স্মার্ট শিক্ষা, জনস্বাস্থ্য, কৃষি, এবং প্রযুক্তিতে প্রবেশাধিকার বাড়ানো, কৃষকদের জন্য ই-বাণিজ্য সুবিধা, আন্তর্জাতিক উৎস থেকে আবহাওয়া পূর্বাভাস সম্পর্কে অবহিত করার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়। এছাড়াও তথ্যপ্রযুক্তিতে শিক্ষক, চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী ও সরকারি কর্মকর্তাদের দক্ষ করতে প্রশিক্ষণসহ ইত্যাদি কার্যক্রম গ্রহণের বিষয়ে জোর দিতে বলা হয়।