অবৈধভাবে ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহের অভিযোগে গুগলকে ছয় কোটি ডলার জরিমানা করেছে অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ান কম্পিটিশন অ্যান্ড কনজিউমার কমিশনের (এসিসিসি) অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি দেশটির ফেডারেল আদালত এক আদেশে এ জরিমানা ধার্য করেন। আদালতে গুগলের বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য অনৈতিকভাবে সংগ্রহের অভিযোগ আনে এসিসিসি। সংস্থাটির অভিযোগ, ব্যবহারকারীদের বিভ্রান্ত করে তাঁদের ব্যক্তিগত অবস্থানগত তথ্য সংগ্রহ করে গুগল।

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কেবল 'লোকেশন হিস্ট্রি' সেটিংসের মাধ্যমে ব্যক্তিগত লোকেশন ডাটা সংগ্রহ করা সম্ভব- এটা একেবারেই ঠিক নয়। ফোনের লোকেশন হিস্ট্রি ফিচার বন্ধ রাখলেও ব্যবহারাকারীর অবস্থানের তথ্য ট্র্যাক করে গুগল। ডিভাইস থেকে ব্যবহারকারীর ইন্টারনেট এবং বিভিন্ন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের মাধ্যমেও ব্যবহারকারীর লোকেশন ডাটা সংগ্রহ করা হয়। ব্যবহারকারীর লোকেশন ডাটা সক্রিয়ভাবেই সংগ্রহ করে জমা রাখে বিভিন্ন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ। ফলে ব্যবহারকারীর অজান্তেই নানা অ্যাপের মাধ্যমে তাঁদের 'লোকেশন হিস্ট্রি' সংরক্ষণ করা হয়।

গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের মাধ্যমে এই বিভ্রান্তি তৈরি করা হয় বলে অভিযোগে বলা হয়। এর সপক্ষে আদালতে প্রমাণও দাখিল করে অস্ট্রেলিয়ার বাজার পর্যবেক্ষক সংস্থাটি। পাশাপাশি ভোক্তা বিভ্রান্তি বিষয়ে আরও দুটি অভিযোগও প্রমাণিত হয় গুগলের বিরুদ্ধে। আদালত তাঁর রায়ে বলেন, গুগলের এ ধরনের কার্যক্রম ভোক্তা অধিকারকে সম্পূর্ণরূপে লঙ্ঘন করে। এটি অন্যায়। এসিসিসির ধারণা, অস্ট্রেলিয়ার কয়েক লাখ গুগল অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারী এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এদিকে এ অভিযোগ এবং জরিমানার বিষয়ে গুগল কিছুই জানায়নি।
প্রযুক্তি প্রতিদিন ডেস্ক