দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে ফাইভ-জির ট্রায়াল শুরু করেছে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোন। গত ২৬ জুলাই ঢাকা ও চট্টগ্রামে সফলভাবে এ ট্রায়াল পরিচালনা করে প্রতিষ্ঠানটি। এ উপলক্ষে সম্প্রতি রাজধানীর জিপি হাউসে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটি। সেখানে আমন্ত্রিত অতিথিরা গ্রামীণফোনের ইনোভেশন ল্যাবে ফাইভ-জি সেবা ব্যবহারের অভিজ্ঞতা গ্রহণ করেন।

তাঁরা এআর ভিডিও, ভিআর গেমিং, রোবটিক আর্মস, এআর সেলফি, ক্লাউড গেমিংসহ প্রযুক্তিগত নানা অভিজ্ঞতা নেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিআরসি) চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, বিটিআরসির ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশনস বিভাগের কমিশনার মো. মহিউদ্দিন আহমেদ, লিগ্যাল অ্যান্ড লাইসেন্সিং বিভাগের কমিশনার সৈয়দ দিলজার হোসেন, স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মাদ মনিরুজ্জামান জুয়েল, গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী ইয়াসির আজমান, প্রতিষ্ঠানটির চিফ মার্কেটিং অফিসার সাজ্জাদ হাসিব প্রমুখ। অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইয়াসির আজমান ফাইভ-জির বিষয়ে কি-নোট উপস্থাপন করেন।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেন, চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সম্ভাবনা উন্মোচনে ফাইভ-জির মতো উন্নত প্রযুক্তি প্রয়োজন। গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী তাঁর মূল বক্তব্যে বলেন, প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে সমাজের ক্ষমতায়ন ও সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরির লক্ষ্যে কাজ করছে গ্রামীণফোন। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ধাপে ধাপে দেশের বিভিন্ন এলাকায় ফাইভ-জি কানেক্টিভিটির অভিজ্ঞতা গ্রহণের সুযোগ তৈরি করবে গ্রামীণফোন। এর মধ্যে রয়েছে গুলশান জিপিসি, বিটিআরসি সার্ভিস আইবি (ঢাকা), বুয়েট বিল্ডিং, মিরাবাজার (সিলেট), কলাতলী (কক্সবাজার), খুলনা, গ্রামীণফোন আঞ্চলিক অফিস, ময়মনসিংহ, রাজশাহী আলুপট্টি মোড়, রংপুর নিউ মার্কেট (সিটি করপোরেশন, পায়রা চত্বর), চট্টগ্রাম পাহাড়তলী ও গ্রামীণফোনের আঞ্চলিক অফিস, কুমিল্লা।
প্রযুক্তি প্রতিদিন ডেস্ক