অ্যাপ ডেভেলপভিত্তিক প্রতিযোগিতা 'বিডিঅ্যাপস ন্যাশনাল হ্যাকাথন ২০২২'-এ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে 'টিম হাকো'। শিক্ষার্থীদের মেসজীবন ব্যবস্থাপনা অ্যাপ 'মেস মনিটর' বানিয়ে সেরার মুকুট জিতেছে তিন বন্ধু মোহাম্মাদ হাদিউজ্জামান, শাহরিয়ার কনক ও আব্দুর রাজ সাফির দল। চ্যাম্পিয়ন হিসেবে দলটি পেয়েছে ২ লাখ টাকা পুরস্কার। ঢাকার নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থী সাদ্দাম হোসেন, ইমরান খান অভি এবং মাহমুদ হাসান ইমামের দল 'টিম এনইউবি' 'ই-বিয়ে' অ্যাপ বানিয়ে প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে। 'চিটাগাং হিলট্র্যাক্টস ট্যুর গাইড অ্যাপ' বানিয়ে তৃতীয় হয়েছে 'টিম সাঙ্গু' দল। এ দলের সদস্যরা হলেন বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের চার শিক্ষার্থী ইয়াসিন আরফাত, উহাই মং মারমা, ডসিং মারমা এবং উমে ফরু মারমা। প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী দল পায় ১ লাখ ২৫ হাজার এবং তৃতীয় হওয়া দল পায় ৭৫ হাজার টাকা। সেরা ১০টি দলকে পুরস্কার হিসেবে সর্বমোট মোট ৫ লাখ টাকা দেওয়া হয়। গত মঙ্গলবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এ সময় হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষ, বেসিস সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, রবির সিইও রাজীব শেঠি, চিফ কমার্শিয়াল অফিসার শিহাব আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, রবির অ্যাপ স্টোর বিডিঅ্যাপস আয়োজিত এ প্রতিযোগিতায় এবার দুই হাজার দলে ভাগ হয়ে পাঁচ হাজার অ্যাপ ডেভেলপার অংশগ্রহণ করেন। জাতীয় পর্যায়ের হ্যাকাথনের আগে ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা ও সিলেটে পাঁচটি আঞ্চলিক পর্যায়ের হ্যাকাথনের আয়োজন করা হয়, যেখানে সারাদেশের অ্যাপস ডেভেলপাররা অংশ নেন। আঞ্চলিক হ্যাকাথন শেষে ৩৬টি দলকে মাসব্যাপী অনলাইন মেন্টরশিপ প্রদান করে ১৫টি আইটি প্রতিষ্ঠান। পরে দলগুলো ৪-৫ নভেম্বর আয়োজিত জাতীয় পর্যায়ের হ্যাকাথনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে, যার মধ্যে থেকে সেরা ১০টি দল প্রতিযোগিতার বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত হয়।

বিষয় : ন্যাশনাল হ্যাকাথন টিম হাকো

মন্তব্য করুন