দুর্বল নেটওয়ার্ক ও রিচার্জে ভোগান্তি-অসঙ্গতি নিয়ে গুরুতর আপত্তি জানিয়েছেন মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীরা। কল কেটে যাওয়া, ইন্টানেটের গতি কমসহ বিস্তর অভিযোগ রয়েছে গ্রাহকদের। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের রেডিসন ব্লুতে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) গণশুনানিতে এসব অভিযোগ করেন তাঁরা। সশরীরে ১৮২ জন, অনলাইনে ৯৪ জন এবং অন্য মাধ্যমে ১৭ জন গ্রাহক এতে অংশ নেন।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর শিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেদ। সংস্থার সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগের মহপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম পারভেজ ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত গণশুনানির অগ্রগতি প্রতিবেদন তুলে করেন।
শুনানিতে দুর্বল নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেটের গতি নিয়ে অভিযোগ করেন একাধিক গ্রাহক। ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশন্স বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়াপর জেনারেল মো. এহসানুল কবীর বলেন, অপারেটরদের বেশকিছু টাওয়ারের নেটওয়ার্ক দুর্বলতা চিহ্নিত করে গতি বাড়ানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
সর্বনিম্ন রিচার্জ সীমা ২০ টাকা তুলে দেওয়ার দাবি জানান জাওয়াদুল করিম নামে এক বেসরকারি চাকরিজীবী। জবাবে নাসিম পারভেজ বলেন, গ্রাহক সাড়া মিললে ব্যবস্থা নেবে বিটিআরসি।
সায়েম নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা রিচার্জ করলে এমনিতেই ইন্টারনেট ডাটা ও বান্ডেল চালু হয়ে যায়। আসিফুল নামে এক শিক্ষার্থী ডাটা শেষ হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পে ফর ইউজ চালু হওয়ার বিষয়ে অভিযোগ করেন। তানিম খান নামে এক গ্রাহক সিমের মালিকানা পরিবর্তনে নিরাপত্তা ঝুঁকির বিষয় উল্লেখ করেন। পারভেজ এসব বিষেয়ও ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন।
গ্রাহকের প্রশ্নের জবাবে এহসানুল কবীর জানান, ফাইভজি চালুর কার্যক্রম ইতোমধ্যে শুরু করেছে সকল অপারেটর।