ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা দিতে গিয়ে লাঞ্ছিত হচ্ছেন কর্মীরা: আইএসপিএবি

প্রকাশ: ২৯ মার্চ ২০২০     আপডেট: ২৯ মার্চ ২০২০   

হাসান জাকির

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ইন্টারনেট সেবা‌দাতা প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের  আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত ও অপমানিত করেছেন বলে অভিযোগ করেছে দেশের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারী কোম্পানিদের সংগঠন আইএসপিএবি। 

এ সম্পর্কে আইএসপিএবির সাধারণ সম্পাদক মো. এমদাদুল হক বলেন, 'এটা খুবই দুঃখজনক। আমরা ঝুঁকি নিয়ে দেশজুড়ে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা চালু রেখেছি। ইন্টারনেট সেবা নিরচ্ছিন্নভাবে চালু রাখতে আমাদের কর্মীদের ২৪ ঘন্টাই কাজ করতে হয়।  এজন্য কর্মীদের সমস্যা আক্রান্ত এলাকায় গিয়ে ব্রডব্যান্ড লাইন ঠিক করতে হয়। কিন্তু গত দু'দিনে নিরবচ্ছিন্ন সেবা নিশ্চিত করতে গিয়ে আমাদের কর্মীরা আইনশৃ্ঙ্খলা বাহিনী দ্বারা নিগৃহীত হচ্ছে। অথচ সরকার ইন্টারনেটকে জরুরি সেবা হিসেবে ঘোষণা করেছে এবং আমাদের চব্বিশ ঘণ্টা কাজ চালিয়ে যেতে বলেছে।’

তিনি বলেন, ‌'গত দু'দিনে অন্তত আটটি এমন ঘটনা ঘটেছে যার যার পাঁচটিই রাজধানীতে। ‘আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা আমাদের কর্মীদের লাঞ্ছিত করেছে এবং আমাদের অফিস বন্ধ করতে বাধ্য করেছে।’

শনিবারের ঘটনার একটি উদাহরণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‌'অফিস খোলা থাকায় পুলিশ নগরীর মোহাম্মদপুরে কাঁটাসুর এলাকায় ফিউচার টেক ইন্টারনেট কর্মীদের মারধর করেছে। ইন্টারনেট সেবা বিষয়ক সরকারি আদেশের কাগজপত্র দেখালেও তারা গুরুত্ব দেয়নি। বিষয়টি ইতিমধ্যে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ও যোগাযোগ-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা না নিলে, আইএসপিএবি’র পক্ষ থেকে ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

দেশে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে গত সপ্তাহের শুরুতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় দেশে ১০ দিনের ছুটি ঘোষণা করে। এসময় বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি টেলিযোগাযোগ ও ইন্টারনেট সেবাকে জরুরি সেবা হিসেবে ঘোষণা করা হয়।