মাগুরা-১ শিখরের পক্ষে একাট্টা আ'লীগ

প্রকাশ: ১৯ নভেম্বর ২০১৮

মাগুরা প্রতিনিধি

জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার আগেই ব্যাপক সামাজিক ও রাজনৈতিক উদ্যোগের পাশাপাশি জেলায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করে দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপশি সাধারণ ভোটারদের মন জয় করেছেন মাগুরা-১ আসনে আওয়ামী লীগের সম্ভব্য প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর। যে কারণে এ আসনে তার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তার পক্ষে সবাই ঐক্যবদ্ধ। তৃণমূলসহ জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন এবং সাধারণ ভোটারদের সঙ্গে আলাপ করে এমন আভাস পাওয়া গেছে।\হদলীয় নেতাকর্মীরা জানান, শিখরের বাবা অ্যাডভোকেট আছাদুজ্জামান ও তার পরিবার মাগুরায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। গত ৫ বছর শিখরের একান্ত প্রচেষ্টায় মাগুরায় তার দল রাজনৈতিকভাবে ব্যাপক শক্তিশালী হয়েছে। জেলা থেকে উপজেলা, ইউনিয়ন এমনকি ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত তিনি একের পর এক সভা-সমাবেশ করেছেন। জেলার প্রায় সব\হপেশাজীবী, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে মতবিনিময় ও সভা করেছেন তিনি। এসব অনুষ্ঠানে সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিয়েছেন।\হশ্রীপুরে গড়াই নদী ভাঙন রোধে ৩৬০ কোটি টাকা, নবগঙ্গা নদী ড্রেজিং ও নদীপাড়ে ওয়াকওয়ে নির্মাণের জন্য ৬৫ কোটি টাকা, পৌর পার্ক নির্মাণের জন্য বড় বরাদ্দ এনেছেন শিখর। এ ছাড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, হাইওয়ে সড়কে চার লেন, শেখ কামাল আইটি পার্ক, শ্রীপুরে গড়াই নদীতে শতকোটি টাকার ব্রিজ নির্মাণ, নবগঙ্গা নদীতে ব্রিজ নির্মাণ, রেললাইন স্থাপনের জন্য ভূমিকা রেখেছেন তিনি। শিখরের প্রচেষ্টায় রাস্তাঘাটসহ জেলায় গ্রামীণ অবকাঠমোর ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে; যা অতীতের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলে মাগুরাবাসীর বড় প্রাপ্তি মেডিকেল কলেজ, ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতাল ও শেখ কামাল ইনডোর স্টেডিয়াম।\হনিজ জেলার উন্নয়ন এবং তা অব্যাহত রাখার প্রচেষ্টা দেখে ভোটাররা ঝুঁকেছেন শিখরের দিকে। নিজস্ব ভোটব্যাংক গড়ে তুলেছেন তিনি। বিশেষ করে দলীয় নেতাকর্মীরা তাকে ঘিরে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করছেন। পশাপাশি তার বিনয়ী ও অমায়িক আচারণে মুগ্ধ হয়ে ভিন্ন মতের রাজনীতির মানুষও সরাসরি শিখরের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিচ্ছেন এবং নৌকা মার্কায় ভোট চাচ্ছেন।

নাকোল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হুমায়ুনুর রশীদ মুহিত ও দারিয়াপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন কানন জানান, শ্রীপুর উপজেলার চারটি ইউনিয়ন নাকোল, কাদিরপাড়া, দারিয়াপুর এবং আমলাসারের পাশ দিয়ে প্রবাহিত গড়াই নদীর ২০টি গ্রাম ভাঙন থেকে বাঁচাতে ৩০৮ কোটি টাকার প্রকল্প বরাদ্দ এনেছেন সাইফুজ্জামান শিখর। যে কারণে এ ইউনিয়নগুলোর সব মানুষ দলমত নির্বিশেষে তাকে ভোট দেওয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে আছে। নির্বাচনে শিখরের বিজয়ের বিষয়ে শতভাগ আশাবাদী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন মুক্তা, মাগুরা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যাপক কামরুজ্জামান চাঁদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ তানজেল হোসেন খান ও সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ কুণ্ডুসহ তৃণমূল নেতাকর্মীরা।\হশিখর বলেন, মাগুরার উন্নয়নের সব কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। তিনি শুধু মাগুরার নন, সারাদেশের উন্নয়নের রূপকার। এ মুহূর্তে দলের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকার পক্ষে কাজ করছেন।\হআওয়ামী লীগের শীর্ষপর্যায়ের একটি বিশ্বস্ত সূত্র নিশ্চিত করেছে, দলের মনোনয়ন বোর্ড মাগুরা-১ আসনে শিখরকে প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করেছে।\হ\হ