গুচি স্নিগ্ধ সুগন্ধি

প্রকাশ: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯      

সায়মা আফরীন সোহা

ব্যক্তিত্বের ধারক আপনার সুগন্ধি। সুগন্ধি ব্যক্তিবিশেষে তার পরিচয়ও বহন করে। তাই যে সুগন্ধিটি ব্যবহার করবেন, সে বিষয়ে সচেতন হওয়া জরুরি। সুগন্ধির ক্ষেত্রে অনেকের পছন্দের শীর্ষে আছে গুচি।

গুচি একটি স্বনামধন্য ব্র্যান্ড। এই সুগন্ধির রয়েছে নির্দিষ্ট তীব্রতা। অভিজাত ব্যক্তিত্বের ছোঁয়া পাবেন গুচি ব্যবহার করে। গুচি ব্র্যান্ড ৬০-৭০ বছরে সর্বাধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। রুচিসম্মত পছন্দের তালিকায় গুচিকেই রাখতেন সবাই। ১৯৭৪ সালে গুচি নং ১-এর প্রথম রচনাটি তৈরি করা হয়েছিল, যা ছিল একটি আড়ম্বরপূর্ণ এবং সংযত ফুলের সুগন্ধি। রবার্ট ফুল, গুল্ম এবং অ্যালডিহাইডগুলোর সংমিশ্রণে এই সুবাস তৈরি করেছিলেন। সেই সময়ে যা খুব জনপ্রিয় হয়েছিল।

১৯৯৫ সালে গুচি অ্যাকেন্তি মেয়েদের পছন্দের শীর্ষে ছিল এবং আশ্চর্যজনকভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল। ডোমিনিক রোপিয়ন এই সুবাস তৈরিতে অংশ নিয়েছে। সুন্দর ফুলের সুবাস যেমন জুঁই, গোলাপ, উপত্যকার লিলি, রাস্ত্রবেরি এবং চন্দনের কাঠ দিয়ে তৈরি করা হতো এই সুগন্ধি। এই সুবাস বিলাসিতা বোঝায়। মুগ্ধতা বোঝায়।

শুধু নারীদের জন্য এই সুগন্ধি নয়। পুরুষের জন্যও আলাদা গুচি রয়েছে। ১৯৯৮ সালে প্রথম যখন পুরুষের জন্য গুচি তাদের আয়োজন নিয়ে আসে, তখন থেকেই মন জয় করে নিয়েছে নানাবয়সী রুচিশীল পুরুষের।

এই সুগন্ধিটির দাম পড়বে ৪ হাজার ৫০০ থেকে ৮ হাজার ৫০০ টাকা।

রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্ক, বসুন্ধরা সিটি, পিংক সিটি শপিংমলসহ বেশ কয়েকটি ব্র্যান্ডের সুগন্ধির শোরুম রয়েছে। যেগুলোতে আমাদের দেশের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশের নামকরা সুগন্ধি পাওয়া যাবে। এ ছাড়া নাভানা টাওয়ার, টুইন টাওয়ার, রাইফেলস স্কয়ার, এলিফ্যান্ট রোড, নিউমার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেট ও শপিংমলে পাওয়া যাবে এই সুগন্ধিটি। া