হাসিমাখা মুখগুলো

উদ্যোগ

প্রকাশ: ৩০ মার্চ ২০১৯

রবিউল ইসলাম

১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবস। সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের স্বাস্থ্যসেবা দিতে রাজধানীতে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হলো বিশেষ হেলথ ক্যাম্প। এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন...


১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস। এই দিনে শিশুদের নিয়ে নানান আয়োজন করে থাকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। আর চাইল্ড সেন্ট্রিক ক্রিয়েটিভ সেন্টার-ফোরসি এ উপলক্ষে করলো ভীন্নধর্মী এক আয়োজন। রাজধানীর খিলগাঁওয়ে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে করলো শিশুদের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ক্যাম্পের আয়োজন। সুবিধাবঞ্চিত স্থানীয় প্রায় দুইশ' শিশুকে চিকিৎসাসেবা প্রদান ও প্রয়োজনীয় ওষুধ সরবরাহ করা হয়।

দুয়েকদিন আগেই পৌঁছে দেওয়া হয়েছিল টোকেন। স্বেচ্ছাসেবকরা পুরো এলাকা চষে বেড়ান। স্থানীয় সুবিধাবঞ্চিত ও দরিদ্র শিশু, যাদের চিকিৎসাসেবা প্রয়োজন তাদের হাতেই তুলে দেওয়া হয় টোকেন। নির্ধারিত সময় সকাল ৯টায়ই অভিভাবকরা শিশুদের নিয়ে হাজির হন। বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ঢুকতেই নজরে পড়ে ফ্রি হেলথ ক্যাম্পের ব্যানার। চলে আসে ওষুধের গাড়ি; আসেন চিকিৎকরাও। প্রধান শিক্ষকের সহায়তায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গণেই চিকিৎসকের রোগী দেখার ব্যবস্থা করা হয়। চারজন চিকিৎসক পাশাপাশি বসেন। শিশুরা এসেই স্বেচ্ছাসেবকদের থেকে সিরিয়াল নেন। সে অনুযায়ী চার চিকিৎসকের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে যায় শিশু কিংবা অভিভাবকরা। তরুণ চিকিৎসক দল অত্যন্ত দরদ নিয়ে শিশুদের দেখেন। বিশেষ অসুবিধা থাকলে অভিভাবককে বলেন। গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যা থাকলে পরামর্শ দেন কোথায় যেতে হবে। কিংবা পরবর্তী চিকিৎসা কী। চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র নিয়ে প্রয়োজনীয় ওষুধ পেয়ে শিশুদের মুখে যে হাসি ফোটে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

শিশুদের লাইন দেখে আর চিকিৎসকদের আন্তরিকতা দেখে স্থানীয় দরিদ্র অনেক মানুষও চলে আসেন। শিশুদের জন্য বিশেষায়িত হলেও অনেক বয়স্ক মানুষও সেবা পান। এ সুযোগে কেউ নিজেদের ডায়াবেটিস দেখেন, প্রেশার মাপেন। সেবাপ্রাপ্ত সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের অনুভূতিও অসাধারণ। তারা বলছেন, এ সেবা পেয়ে সবাই খুশি।

আয়োজকদের একজন বলছেন, ফোরসি শিশুদের মেধা ও মননের বিকাশে কাজের পাশাপাশি সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য এ চিকিৎসাসেবার আয়োজন করে। বিশেষ করে ঢাকার পথকলি ও বস্তিতে থাকা শিশু, যারা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সেবাবঞ্চিত তাদের জন্য এ ক্যাম্প। এ ক্যাম্পে  সহ-আয়োজক ছিল রামপুরার ফরাজী হাসপাতাল। আয়োজনে সহযোগিতা করে দ্য ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লা ও স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রত্যাশিত হাসিমুখ।

চিকিৎসাসেবা ক্যাম্পে শিশুদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেন আয়োজক সংগঠন ফোরসির সেক্রেটারি অব রিসার্চ অ্যান্ড ডকুমেন্টেশন ডা. সৈয়দা সুস্মিতা জাফরসহ ডা. শাহজাহান আলী, ডা. মৌমিতা ধর ও ডা. তানজিরুল ইসলাম।