বাজেটের পর কমেছে বেশিরভাগ শেয়ারদর

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৬

মসমকাল প্রতিবেদক

বাজেট ঘোষণার পর গত সপ্তাহে দেশের দুই শেয়ারবাজারের লেনদেনে বিরূপ প্রভাব পড়েছে। উভয় বাজারে লেনদেন হওয়া অধিকাংশ কোম্পানিরই শেয়ারদর কমেছে। প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইতে গত সপ্তাহে ৩২৬ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। এরমধ্যে ৭৯টির দর বেড়েছে। বিপরীতে ২১৯টির দর কমেছে। অধিকাংশ শেয়ারের দর কমায় এ বাজারের মূল্য সূচকগুলোতেও নিম্নমুখী ধারা দেখা যায়। ডিএসইএক্স সূচক ২৭ পয়েন্ট কমে ৪৪১৯ পয়েন্টে নেমেছে।
একই চিত্র ছিল দেশের দ্বিতীয় শেয়ারবাজার সিএসইতে। এ বাজারে ৭৬ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের দরবৃদ্ধির বিপরীতে ১৭০টি দর হারায়। দর অপরিবর্তিত থাকে ২০টির। এতে এ বাজারের প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৫৫ পয়েন্ট হারিয়ে ৮২৭৪ পয়েন্টে নেমেছে।
শেয়ারদর ও সূচকের পাশাপাশি উভয় বাজারে শেয়ার কেনাবেচার পরিমাণও কমেছে। ডিএসইতে গত সপ্তাহে মোট ১ হাজার ৭২৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়। দৈনিক গড়ে লেনদেন হয় ৩৪৫ কোটি ১৫ লাখ টাকা। যা আগের সপ্তাহের তুলনায় সাড়ে ২০ শতাংশ কম। এ ছাড়া সিএসইতে গত সপ্তাহে ১২৬ কোটি ৩৮ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়। এর আগের সপ্তাহে ১৪৭ কোটি ৪২ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল।
ডিএসইর খাতওয়ারী লেনদেন পর্যালোচনায় দেখা যায়, অধিকাংশ শেয়ারের দর কমার পরও তার নেতিবাচক প্রভাব ব্যাংক খাতে তেমনটি পড়েনি। গত সপ্তাহে এ খাতের ১৪ কোম্পানির শেয়ারদর বৃদ্ধির বিপরীতে কমেছে ১১টির। বাকি ৫টির দর অপরিবর্তিত থেকেছে। একই অবস্থা ছিল মিউচুয়াল ফান্ড খাতে। ১৩টি ফান্ডের দরবৃদ্ধির বিপরীতে কমেছে ৮টির। বাকিগুলোর দর অপরিবর্তিত ছিল।
বিপরীতে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক খাতের ২৩ কোম্পানির মধ্যে ১৮টির ও বীমা খাতের ৪৭ কোম্পানির মধ্যে ৩২টির দর কমেছে। প্রকৌশল খাতে ২৬টির দরহ্রাসের বিপরীতে বেড়েছে ৪টির দর। বস্ত্র খাতের ৪৪ কোম্পানির মধ্যে কমেছে ৩৬টির দর। অন্য খাতগুলোতেও ছিল একই রকম চিত্র।