'নিজেকে বদলাতে চাই'

প্রকাশ: ০৯ নভেম্বর ২০১৮     আপডেট: ০৮ নভেম্বর ২০১৮      

অহনা। মডেল ও অভিনেত্রী। গতকাল বৈশাখী টিভিতে তার অভিনীত ধারাবাহিক নাটক 'ছায়াবিবি' ১০০তম পর্ব প্রচার হয়। এ ছাড়াও বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে তার অভিনীত একাধিক ধারাবাহিক নাটক। কথা হলো তার সঙ্গে-

'ছায়াবিবি' নাটকের শততম পর্ব প্রচার হলো। এ নাটকে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

'ছায়াবিবি' নাটকে আমার অভিনয়ের কথাই ছিল না। কিন্তু নাটকের পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন দোদুল যখন গল্পটি শোনালেন, তখনই এতে অভিনয়ের জন্য রাজি হই। নাটকটির প্রথম পর্ব থেকে শততম পর্ব পর্যন্ত গল্পে বেশ বৈচিত্র্য ছিল। আর এ কারণেই নাটকটির প্রতি দর্শকের আগ্রহ তৈরি হয়েছে। সামাজিক অবক্ষয় এবং হাস্যরসই এ নাটকের প্রধান উপজীব্য।

'নোয়াশাল' নাটকে আপনি তো আঞ্চলিক ভাষায় অভিনয় করছেন। কেমন লাগছে নিজ অঞ্চলের ভাষায় অভিনয় করতে?

অভিনেতা ও পরিচালক মীর সাব্বির ভাইয়ের এই নাটকে কাজ করছি প্রায় ছয় বছর হলো। মজার ব্যাপার হলো, দীর্ঘদিন ধরে এতে অভিনয়ের পরও বরিশালের ভাষা পুরোপুরি আয়ত্ত করতে পারিনি। যদিও আমার গ্রামের বাড়ি বরিশাল। তারপরও ভাষাটা কেন যেন রপ্ত হচ্ছে না। সে কারণে মীর সাব্বির ভাই প্রায়ই আমাকে ক্ষেপায়। দীর্ঘদিন ধরে একটি নাটকে অভিনয় করা হলে একটা সময় সবাই মিলে পরিবারের মতো হয়ে যায়। এই নাটকের বেলাতেও তেমনটাই হয়েছে। 'নোয়াশাল' কিন্তু শুধু হাস্যরসাত্মক নাটক নয়। এই নাটকের মধ্যমে আমরা সামাজিক অনেক সমস্যার কথা তুলে ধরেছি।

বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?

আমার এখনকার ব্যস্ততা ধারাবাহিক নাটক ঘিরে। 'ছায়াবিবি', 'নোয়াশাল' ছাড়াও বৈশাখী টেলিভিশনে 'রসের হাঁড়ি' ও 'কমেডি ৪২০' নিয়মিত প্রচার হচ্ছে। কিছুদিন আগে কাজ করেছি 'লাকি থার্টিন'-এ। এটি আরটিভিতে প্রচার হবে। এ ছাড়াও কয়েকটি নাটকে কাজ করছি। আর সামনেই ভালোবাসা দিবসের জন্য কয়েকটি এক ঘণ্টার নাটকে অভিনয়ের কথা চলছে।

চলচ্চিত্রে অভিনয়ে নতুন করে কিছু ভাবছেন?

একটা সময় চলচ্চিত্রে নিয়মিত অভিনয়ের ইচ্ছা ছিল। সেই ভাবনা থেকে তিনটি ছবিতে অভিনয় করেছিলাম। এখনও প্রায়ই চলচ্চিত্রের জন্য প্রস্তাব পাই। কিন্তু গল্প ও চরিত্র পছন্দ না হওয়ায় রাজি হচ্ছি না।
 
-সমু সাহা