শুরু হচ্ছে আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৯

আনন্দ প্রতিদিন প্রতিবেদক

গত পাঁচ বছরের মতো চলতি বছর আবারও বসতে চলেছে আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব। এরই মধ্যে এবারের ষষ্ঠ আসরের জন্য চলচ্চিত্র জমা দেওয়া শুরু হয়েছে। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে আগ্রহীরা জমা দিতে পারবেন নিজেদের বানানো চলচ্চিত্র।

রাজধানীর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় 'ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ' [ইউল্যাব] এর শিক্ষানবিশ কার্যক্রম 'সিনেমাস্কোপ'-এর আয়োজনে এই উৎসবের জন্য এরই মধ্যে জমা পড়েছে ১০০টি চলচ্চিত্র।

জানা গেছে স্ট্ক্রিনিং, কম্পিটিশন এবং ওয়ান মিনিট- এই তিন ক্যাটাগরিতে চলচ্চিত্র জমা দেওয়া যাবে। স্ট্ক্রিনিং বিভাগের জন্য আগ্রহী যে কেউ চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন। কম্পিটিশন বিভাগের জন্য শুধু বিশ্ববিদ্যালয় পড়ূয়া শিক্ষার্থীরা চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন। এই বিভাগ থেকে সেরা চলচ্চিত্রটি পাবে 'সিনেমাস্কোপ বেস্ট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড'।

এ ছাড়াও প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ওয়ান মিনিট বিভাগের জন্য চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবে এবং এই বিভাগের সেরা চলচ্চিত্রটি পাবে 'ইউল্যাব ইয়াং ফিল্ম মেকার অ্যাওয়ার্ড'। স্ট্ক্রিনিং এবং কম্পিটিশন বিভাগের জন্য চলচ্চিত্রের দৈর্ঘ্য হতে হবে সর্বোচ্চ ১০ মিনিট এবং ওয়ান মিনিট বিভাগের জন্য টাইটেল ও ক্রেডিট লাইন হতে হবে এক মিনিট দৈর্ঘ্যের। প্রত্যেক প্রতিযোগী সর্বোচ্চ দুটি চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন। প্রত্যেকটি চলচ্চিত্রের সঙ্গে সাব টাইটেল যুক্ত থাকা বাধ্যতামূলক। উৎসব সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানা যাবে 'ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব'-এর ওয়েবসাইটে।

এ ছাড়াও সিনেমাস্কোপ বেস্ট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড এবং ইউল্যাব ইয়াং ফিল্ম মেকার অ্যাওয়ার্ডের জন্য বিজয়ীরা পাবেন নগদ অর্থ, ক্রেস্ট এবং সার্টিফিকেট।

উল্লেখ্য, 'নতুন প্রজন্ম, নতুন প্রযুক্তি ও নতুন যোগাযোগ'- এই প্রতিপাদ্য নিয়ে ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের যাত্রা শুরু হয় পাঁচ বছর আগে। এর আয়োজনে রয়েছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় 'ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ' (ইউল্যাব)-এর শিক্ষানবিশ কার্যক্রম 'সিনেমাস্কোপ'। মুঠোফোনের মাধ্যমে চলচ্চিত্র নির্মাণে উৎসাহিত করার জন্যই সিনেমাস্কোপের এই আয়োজন।