আজকের শিল্পী

'অস্বস্তিতে থেকে গান করা যায় না'

প্রকাশ: ২২ অক্টোবর ২০২০

সমকাল প্রতিবেদক

প্রিন্স মাহমুদ। নন্দিত গীতিকার ও সুরকার। সম্প্রতি তার সুরে প্রকাশিত হয়েছে তানজির তুহিনের গাওয়া একক গান 'আলো'। এই গান ও অন্যান্য বিষয়ে কথা হয় তার সঙ্গে-

আপনার সুরে তানজির তুহিনের গাওয়া 'আলো' গানটি কি আইয়ুব বাচ্চু স্মরণে তৈরি করা?

'আলো' গানটি আইয়ুব বাচ্চুকে উৎসর্গ করেছি। এর কথা লেখা হয়েছে অস্বস্তিকর এ সময়টা নিয়ে। আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীর আগ মুহূর্তে গান প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় তাকে উৎসর্গ করা।

'আলো' গানের সুর করার সময় কি এর শিল্পী নির্বাচন করেছিলেন?

শিল্পী নির্বাচন করে আমি কখনও কোনো গান তৈরি করিনি। 'আলো' গান তৈরির পর মনে হয়েছে তানজীর তুহিনকে দিয়ে গাওয়ানো যেতে পারে। তুহিনের সঙ্গে অনেক দিনের পরিচয়। আমাদের সম্পর্কটাও বেশ ভালো। কিন্তু কখনও তুহিনকে দিয়ে কোনো গান গাওয়ানো হয়নি। আমার সুরে এটা প্রথম গান হলেও ঠিক যেভাবে চেয়েছি, তুহিন সেভাবেই গানটি গেয়েছেন।

এর আগে কোনো গানের ডেমো প্রকাশ করতে দেখা যায়নি, এবার 'আলো' গানের ডেমো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশের কারণ কী?

এর আগে কখনই কোনো গানের ডেমো প্রকাশ করিনি, এবার করেছি অনেকটা আবেগের বশে। গানের সুর করার পর এক ধরনের ভালো লাগায় মন ছেয়ে ছিল। কেন যেন, শ্রোতাদের খুব গান শোনাতে ইচ্ছা করছিল। তাই ইমোশনালি গানের পুরোনো দুটি ডেমো থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তা তুলে ধরেছিলাম। ঠিক করেছিলাম, পরে গানটি সরিয়ে ফেলব। কিন্তু যখন দেখলাম গান শুনে অনেকে ভালো লাগার কথা প্রকাশ করছে, তখন মনে হলো- গান শুনে যখন শ্রোতাদের ভালো লাগছে, তখন শুনতে থাকুক।

লকডাউনে অনেকে ঘরে বসে নানা ধরনের কাজ করেছেন। আপনাকে কিছু করতে দেখা যায়নি, এর কারণ কী?

লকডাউনের সময় এক ধরনের অস্বস্তিতে ছিলাম। কারণ, এর আগে আমরা কখনও এ ধরনের পরিস্থিতির মুখোমুখি হইনি। এমন একটা পরিস্থিতিতে কি কোনো কিছু করার কথা ভাবা যায়? কখনোই অস্বস্তিতে থেকে গান হয় না। রাগ, ক্ষোভ, যুদ্ধ, সংগ্রামের মাঝেও গান তৈরি হয়, কিন্তু মনের অস্বস্তিকর অবস্থায় নয়। এজন্য আমিও কোনো কিছু করার কথা একদমই মাথায় আনিনি।

একক গানের আধিপত্যে অ্যালবাম কি হারিয়ে যাচ্ছে বলে মনে হয়?

এটা সময়ের দাবি। আমার ধারণা, এখন কেউ লম্বা সময় নিয়ে কোনো অ্যালবাম শুনবেন বলেও মনে হয় না। ক্যাসেট, সিডির যুগ শেষ, অনলাইন এখন গান প্রকাশের প্রধান মাধ্যম, এ কারণেই একটি গানই সবাই প্রকাশ করছেন। তবে অ্যালবাম হতে পারে, যদি কোনো স্পন্সর পাওয়া যায়।