বন্নি হাসান। মডেল, অভিনেত্রী ও কণ্ঠশিল্পী। সম্প্রতি তার গাওয়া 'ইউটিউমার' ওয়েব ছবির 'জীবন একটা পাগলা ঘোড়া' গানটি শ্রোতার মাঝে সাড়া ফেলেছে। এই গান ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তার সঙ্গে-

'ইউটিউমার' ছবির মাধ্যমে প্লেব্যাক শিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ হলো। প্রথম ছবির গানেই এত সাড়া পাবেন, কখনও ভেবেছিলেন?

'ইউটিউমার' ছবিতে গাওয়া 'জীবন একটা পাগলা ঘোড়া' গানটি শ্রোতাদের মাঝে এত সাড়া ফেলবে, সত্যি অনুমান করতে পারিনি! কারণ, এটা শুধু আমার প্রথম প্লেব্যাকই নয়; রেকর্ড করা প্রথম গানও। তাই গানটি শ্রোতার কেমন লাগবে- এটাই শুধু ভেবেছি। এখন শুনে অনেকে প্রশংসা করছেন, এটা বড় পাওয়া। অবশ্য শ্রোতার এই ভালো লাগার পেছনে যতটা না নিজের, তার চেয়ে বেশি কৃতিত্বের দাবিদার সংগীত পরিচালক আরাফাত মহসিন নিধি, গীতিকার নুহাশ বনাভেঞ্চার এবং ছবির নির্মাতা আদনান আল রাজীব। তাদের জন্যই প্লেব্যাক শিল্পী হিসেবে নিজেকে তুলে ধরা।

মডেলিং, অভিনয়ের পাশাপাশি আপনি যে গানও গাইতে পারেন, এটা ছবির নির্মাতা জানলেন কীভাবে?

আমি কাজের ফাঁকে মাঝে মাঝে গুনগুন করে গাইতাম। আপন মনেই গান গাওয়া। কিন্তু শুটিং সেটে আমার গান শুনে কেউ প্লেব্যাকের প্রস্তাব দেবেন- কখনও তা কল্পনাও করিনি।

গানের চর্চা কি আগে থেকেই?

ছোটবেলায় গান শিখেছি। রবীন্দ্রসংগীত আর ফোক গানের প্রতি দুর্বলতা ছিল। বয়সের তুলনায় আমার কণ্ঠ অনেকটাই পরিণত। সেই সুবাদে বেশ কিছু কনসার্টেও গান গাওয়ার সুযোগ হয়েছে। এ সবকিছু করেছি শুধু গানের প্রতি ভালো লাগা থেকে; কোনো তারকাখ্যাতির মোহে নয়।

মডেল, অভিনেত্রী, কণ্ঠশিল্পী- এই তিন পরিচয়ের কোনটিকে প্রাধান্য দেন?

গান ও মডেলিংয়ের প্রতি এক ধরনের ভালো লাগা আছে। তবে অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্নই মনের মধ্যে লালন করি। অভিনেত্রী হিসেবে স্বপ্নের কিছু চরিত্র পর্দায় তুলে ধরতে চাই।

গান ছাড়াও আপনার 'উপায়' অ্যাপের বিজ্ঞাপনটি দর্শকের মাঝে সাড়া ফেলেছে। একই সময়ে দুই পরিচয়ে পাওয়া সাফল্যকে কীভাবে দেখছেন?

এটা আমার কাছে অন্যরকম এক প্রাপ্তি। এমন প্রাপ্তির জন্য সহকর্মী সবার প্রতি কৃতজ্ঞ। যারা দিনরাত ভিন্ন ধরনের কাজে চেষ্টা করে যাচ্ছেন, তেমন কিছু মানুষের সঙ্গে কাজের সুযোগ পাওয়ায় আমি ধন্য।

কাজের বিষয়ে আপনার আগামী দিনের ভাবনার কথা জানতে চাই।

আমার কাজের অভিজ্ঞতা বেশি নয়। গুণী নির্মাতাদের সঙ্গে কাজের মধ্য দিয়ে তাই অভিজ্ঞতা বাড়ানোর পাশাপাশি নিজেকে পরিণত শিল্পী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। ভালো কাজ দিয়ে জয় করতে চাই দর্শক-হৃদয়।

মন্তব্য করুন