বাপ্পা মজুমদার। তারকা কণ্ঠশিল্পী ও সংগীত পরিচালক। সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছে তার নতুন গান 'শূন্যপর'। এ ছাড়া তিনি এখন ব্যস্ত 'ভালোবাসা প্রীতিলতা' ছবির সংগীত পরিচালনা, একক গান ও ব্যান্ডের নানা আয়োজন নিয়ে। সাম্প্রতিক ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তার সঙ্গে-

'শূন্যপর' গানটিতে শ্রোতাদের কেমন সাড়া পেলেন?

এককথায় বলতে গেলে দারুণ। 'শূন্যপর' গানের ধরন একটু আলাদা। 'কথা রাখা না-রাখার দোটানায় থেমে গেছে ঘড়ি' এমন কথার গানটি লিখেছেন কবি হেনরি লুইস। কলকাতার টুনাই দেবাশীষ গাঙ্গুলীর সুরে গানটির সংগীতায়োজন করেছেন শুভেন্দু দাস শুভ। যেহেতু এই গানের ধরন আলাদা, সে কারণে রুচিশীল শ্রোতাদের কাছে গানটি ভালো লেগেছে। এরই মধ্যে যারা শুনেছেন, তাদের অনেকে সরাসরি ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভালো লাগার কথা জানিয়েছেন।

মিউজিক ভিডিওর এ সময়ে গানের লিরিক্যাল ভিডিও প্রকাশ হয়েছে... এত সাদামাটা করলেন কেন?

মিউজিক ভিডিওর এ সময়ে লিরিক্যাল ভিডিও সাদামাটা মনে হয়, বিষয়টির সঙ্গে আমি একমত। কিন্তু খেয়াল করে দেখবেন, আজকাল মিউজিক ভিডিওতে যেভাবে নানা ধরনের গল্প তুলে ধরা হচ্ছে, তাতে গানের প্রকৃত নির্যাস হারিয়ে যাচ্ছে বলে আমার মনে হয়। আর যেহেতু আমি নিজের লেবেল থেকেই গানটি প্রকাশ করেছি, তাই চাইনি মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করতে। কারণ, দর্শকের ভাবনার জায়গাটা খোলা থাকুক। ভিডিও হলে ভাবনা বন্ধ হয়ে যাবে। যে জন্যই এমন সিদ্ধান্ত। লিরিক্যাল ভিডিও হলেও শ্রোতারা এটি পছন্দ করেছেন। গানটির ভিডিও এমনভাবে নির্মাণ করা হয়েছে, যেখানে গানই প্রধান, ভিডিও নয়।

শুনলাম, নারী কণ্ঠশিল্পীদের নিয়ে গান তৈরির উদ্যোগ নিয়েছেন। কোন ভাবনা থেকে এমন সিদ্ধান্ত?

অনেক দিন ধরে নিজের পছন্দের নারী সংগীতশিল্পীদের জন্য গান তৈরির পরিকল্পনা করছি। যাদের নিয়ে গানগুলো করছি, তারা প্রত্যেকে আমার ভীষণ কাছের মানুষ। খুব স্নেহের। আমার তরফ থেকে মনে হয়েছে, তাদের প্রত্যেকের জন্য একটি গান করা উচিত। এতে কোনো ধরনের বাণিজ্যিক চিন্তা নেই। ভালোবাসার জায়গা থেকেই করেছি। আশা করছি, নতুন কিছু ভাবনা ও পরিকল্পনার বাস্তবায়ন দেখতে পাবেন শ্রোতারা। এরই মধ্যে এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে কনা, এলিটার গান রেকর্ড করেছি। পর্যায়ক্রমে আরও আট নারী সংগীতশিল্পীর গান রেকর্ড করব।

'সংগীত ঐক্য' সংগঠনের সাংস্কৃতিক সচিবের দায়িত্ব পালন করছেন। সংগঠন নিয়ে আগামীর পরিকল্পনা কী?

গানের সঙ্গে যারা সম্পৃক্ত আছেন, তাদের সামগ্রিক উন্নয়ন নিয়ে কাজ করছি। এত দিন আমরা বিচ্ছিন্নভাবে কাজ করেছি। অনেক আগেই একত্র হওয়া জরুরি ছিল। এরই মধ্যে ১৭ দফা প্রস্তাবনা সরকারের কাছে দেওয়া হয়েছে। সামনে আরও কিছু পরিকল্পনা রয়েছে।

দলছুটের নতুন অ্যালবাম 'সঞ্জীব' কবে প্রকাশ পাবে?

অনেক আগে অ্যালবামটির কাজ শেষ করেছি। গত বছর এটি প্রকাশের ইচ্ছা ছিল। কিন্তু করোনার কারণে সব পিছিয়েছে। করোনার প্রাদুর্ভাব কমলেই 'সঞ্জীব' প্রকাশ পাবে। এর মধ্যে অ্যালবামটি থেকে দুটি গান অনলাইনে প্রকাশ করা হয়েছে।

আপনার সংগীতজীবনের তিন দশক পার হলো। পেছনে ফিরে তাকালে কী মনে হয়?

ফেলে আসা দিন সবার জন্য মধুর হয়। সামনে আরও অনেক কাজের স্বপ্ন দেখি। বেঁচে থাকতে থাকতে সেগুলো বাস্তবায়ন করতে চাই। এই এক জীবনে শ্রোতাদের প্রত্যাশা কতটুকু পূরণ করতে পেরেছি, জানি না। তবে এই ৩০ বছরে শ্রোতাদের যে ভালোবাসা পেয়েছি, তার চেয়ে বড় প্রাপ্তি আর নেই।

এবার উপস্থাপনার কথা বলুন?

আমি গানের মানুষ। তার পরও এটিএন বাংলার 'মিউজিক লাউঞ্জ' নিয়মিত উপস্থাপনা করছি। বেশ ভালো লাগছে। যেহেতু এই আয়োজন গানের মানুষদের নিয়ে, তাই কাজটি করতে মন্দ লাগে না।

এ সময়ের ব্যস্ততা কী নিয়ে?

এখন সিনেমার সংগীত পরিচালনা নিয়ে ব্যস্ত আছি। এরই মধ্যে 'ভালোবাসার প্রীতিলতা' ছবির জন্য পাঁচটি গান তৈরি করেছি। এখন আবহ সংগীতের কাজ করছি। পাশাপাশি নিজের অন্যান্য কাজও করছি।

এমদাদুল হক মিলটন

মন্তব্য করুন