হৃদয় খান। তারকা কণ্ঠশিল্পী ও সংগীতায়োজক। সম্প্রতি 'রাত জাগা ফুল' ছবিতে তার গাওয়া 'মনে থাকে মনের মানুষ' গানটি শ্রোতার মাঝে সাড়া ফেলেছে। এই গান, বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য বিষয়ে কথা হয় তার সঙ্গে-

'মনে থাকে মনের মানুষ' গানটি নিয়ে শ্রোতার প্রতিক্রিয়া কেমন?

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভালো লাগার কথা অনেকে উল্লেখ করেছেন। এও বলেছেন, আমার কণ্ঠে তারা এ ধরনের গান আগে শোনেননি। কথার কথাও নয়, কারণ নিজেও এ ধরনের গান আগে গাইনি। 'মনে থাকে মনের মানুষ' মৌলিক গান হলেও এর সুর করা হয়েছে ফোক গানের আদলে। অ্যালবাম, একক গান কিংবা কোনো ছবিতে আগে এ ধরনের সুর করা হয়ে ওঠেনি।

সিনেমার গান নিয়েও নিরীক্ষা করার সুযোগ থাকে?

অন্যদের কথা জানি না। আমার বেলায় বলতে পারি- এখন পর্যন্ত যে ক'টি ছবিতে সংগীত পরিচালনা করেছি, সেখানে পুরো স্বাধীনতা ছিল। 'রাত জাগা ফুল' সিনেমার গানের বিষয়েও পরিচালক মীর সাব্বির পুরোপুরি স্বাধীনতা দিয়েছিলেন। সে জন্যই সিনেমার গল্প, চরিত্র ও ঘটনার বাঁকবদলের ওপর ভিত্তি করে স্বাধীনভাবে গান তৈরি করতে পেরেছি। গানের সুরে শিকড়ের ছাপ রেখেছি। কারণ সিনেমার গানের জন্য এটা মানানসই মনে হয়েছে।

'শূন্য হৃদয়' প্রকাশের পর নতুন গান করেছেন?

কাজ করে যাচ্ছি। কথা-সুর-সংগীতায়োজন সবকিছু শেষ করার পরই রেকর্ড করব। এর পর প্রকাশের বিষয়ে ভাবব। কারণ শ্রোতা সব সময় নতুন কিছু চান। তাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে না পারলে অহেতুক একের পর এক গান প্রকাশের কোনো মানে হয় না। সেই ভাবনা থেকেই একেকটি গান তৈরিতে যথেষ্ট সময় নিই। চেষ্টা করি গানের সুর ও সংগীতায়োজনের পাশাপাশি গায়কিতে নিজেকে নতুনভাবে তুলে ধরতে।

নতুনদের নিয়ে কোনো আয়োজনের কথা ভাবছেন?

যখনই সুযোগ পাই, নতুনদের জন্য কিছু না কিছু করার চেষ্টা করি। সে জন্যই ধারাবাহিকভাবে 'হৃদয় মিক্স' অ্যালবামের আয়োজন করা। করোনার জন্য অনেক দিন সেভাবে কিছু করার সুযোগ হয়নি। এখন আবার সবকিছু নতুনভাবে গুছিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছি। হয়তো এ বছরেই নতুনদের নিয়ে ভিন্ন ধাঁচের কোনো আয়োজন করতে পারব। তবে সবকিছু নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর।

'ভালো লাগে না' রিমেক গানের মতো আর কোনো আয়োজনের পরিকল্পনা আছে?

সেভাবে এখন কিছু ভাবিনি। 'ভালো লাগে না' গানের অ্যাকুস্টিক ভার্সন প্রকাশ করেছি। কারণ এর দুটি ভার্সন আগেই রেকর্ড করা ছিল। আমরা যারা গান বা সংগীত নিয়ে মেতে থাকি, তারা নিজেদের সৃষ্টি নিয়ে কাটাছেঁড়া করতেই থাকি। নানা ধরনের নিরীক্ষার কথাও মাথায় আসে। সে জন্যই এ গানের দুটি ভার্সন তৈরি করা। কাছের যারা অ্যাকুস্টিক ভার্সনটি শুনেছিলেন, তারাই অনুরোধ করেছিলেন, শ্রোতার জন্য যেন এটি প্রকাশ করি। নিজে থেকে জনপ্রিয় গানগুলো রিমেক করার ভাবনা আদৌ ছিল না।

তাহলে কি আর কোনো জনপ্রিয় গান রিমেক করবেন না?

শ্রোতা চাইলে জনপ্রিয় গানের রিমেক করতে আপত্তি নেই। তবে সব সময় চেষ্টা থাকবে মৌলিক নতুন গান তৈরি করে যাওয়ার।

মন্তব্য করুন