দু'জন ছাড়া বাদ পুরনো সবাই

সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের নাম ঘোষণা

প্রকাশ: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

মন্ত্রিসভার মতো একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থী বাছাইয়েও চমক দেখিয়েছে আওয়ামী লীগ। সিংহভাগ নতুন মুখকে মনোনয়ন দিয়ে গতকাল শুক্রবার এই পদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন দলটি। ঘোষিত ৪১টি আসনের প্রার্থীদের মধ্যে ৩৯ জনই প্রথমবারের মতো সংরক্ষিত আসনের এমপি হিসেবে দলের মনোনয়ন পেয়েছেন। বাকি মাত্র দু'জন দশম জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসনে এমপি ছিলেন।

৩০ ডিসেম্বরের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসনপ্রাপ্তির হিসাবে আওয়ামী লীগ ৪৩টি সংরক্ষিত আসন পেলেও দুটি আসনের প্রার্থী ঘোষণা করেনি দলটি। রাজবাড়ী ও খুলনা থেকে এ দুটি আসনের প্রার্থী দেওয়া হতে পারে। তাদের নাম প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা চূড়ান্ত করবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার সিদ্ধান্ত থাকলেও আওয়ামী লীগ কেবল চেয়ারম্যান পদেই প্রার্থী দেবে। ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদ সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

গতকাল শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের যৌথ সভায় জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের জন্য দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সভায় বোর্ড সদস্যরা যোগ দেন।

সভায় আগামী ১০ মার্চ অনুষ্ঠেয় প্রথম ধাপের ৮৭টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নামও চূড়ান্ত করা হয়। এ সময় উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদ উন্মুক্ত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আজ শনিবার সকাল ১১টায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হবে।

সভা শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংরক্ষিত আসনের দলীয় এমপি প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ।

সংরক্ষিত আসনের এমপি পদে ঘোষিত প্রার্থীরা আওয়ামী লীগ থেকে একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পাওয়ায় তাদের সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন বলে নিশ্চিত। এসব আসনে দলের পক্ষে আর কারও প্রার্থী হওয়ার সুযোগ নেই। এর আগে সংরক্ষিত আসনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে এক হাজার ৫১৮ জন দলীয় মনোনয়নের ফরম জমা দিয়েছিলেন।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৪ মার্চ ৫০টি সংরক্ষিত আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসনপ্রাপ্তির হিসাবে এবারের সংসদে আওয়ামী লীগ ৪৩টি, জাতীয় পার্টি ৪টি, বিএনপি একটি, ওয়ার্কার্স পার্টি একটি এবং স্বতন্ত্র তিনটি আসনের বিপরীতে একটি আসনে প্রার্থী দিতে পারবে। তবে বিএনপি থেকে নির্বাচিত ছয়জন এমপি শপথ নেওয়ার পরই দলটি প্রার্থী দিতে পারবে। তার আগে সেই আসনটি স্থগিত থাকবে।

অন্যদিকে আজ শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় গণভবনে স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের আরেকটি সভা ডাকা হয়েছে। এই সভায় বাকি ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নাম চূড়ান্ত করা হবে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন শেখ হাসিনা।

যাদের প্রার্থী করা হয়েছে :ঘোষিত প্রার্থী তালিকা অনুযায়ী দশম জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের এমপিদের মধ্যে মাত্র দু'জনকে আবারও দলের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। পুরনোদের মধ্যে মুন্সীগঞ্জ থেকে দলের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এবং চট্টগ্রাম থেকে মহিলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ওয়াসিকা আয়েশা খান সংরক্ষিত আসনে দলের মনোনয়ন পেয়েছেন।

প্রখ্যাত অভিনেত্রী ও এবারের একুশে পদকের জন্য মনোনীত সুবর্ণা মুস্তাফা ঢাকা থেকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। মানবাধিকার কর্মী ও প্রিপ ট্রাস্টের নির্বাহী পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা আরমা দত্ত মনোনয়ন পেয়েছেন কুমিল্লা থেকে।

এ ছাড়া আওয়ামী লীগ থেকে আরও মনোনয়ন পেয়েছেন আঞ্জুম সুলতানা (কুমিল্লা), সুলতানা নাদিরা (বরগুনা), হোসনে আরা (জামালপুর), রুমানা আলী (গাজীপুর), উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম (ব্রাহ্মণবাড়িয়া), হাবিবা রহমান খান শেফালি (নেত্রকোনা), বঙ্গবন্ধুর চাচাতো ভাই শেখ হাফিজুর রহমান টোকনের স্ত্রী শেখ এ্যানি রহমান (পিরোজপুর), অপরাজিতা হক (টাঙ্গাইল), শামীমা আক্তার খানম (সুনামগঞ্জ), শামসুন্নাহার ভূঁইয়া (গাজীপুর), রাবেয়া আলীম (নীলফামারী), নরসিংদী পৌরসভার প্রয়াত মেয়র লোকমান হোসেনের স্ত্রী তামান্না নুসরাত বুবলী (নরসিংদী), নার্গিস রহমান (গোপালগঞ্জ), মনিরা সুলতানা (ময়মনসিংহ), নাহিদ ইজহার খান (ঢাকা), খালেদা খানম (ঝিনাইদহ), সৈয়দা রুবিনা মিরা (বরিশাল), কাজী কানিজ সুলতানা (পটুয়াখালী), অ্যাডভোকেট গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার (খুলনা), জাকিয়া তাবাস্‌সুম (দিনাজপুর), ফরিদা খানম সাকী (নোয়াখালী), মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য বাসন্তী চাকমা (খাগড়াছড়ি), কানিজ ফাতেমা আহমেদ (কক্সবাজার), আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সাবেক সদস্য ও সাবেক এমপি ভাষাসংগ্রামী ইমাম উদ্দিন আহমাদের স্ত্রী রুশেমা বেগম (ফরিদপুর), সৈয়দা রাশিদা বেগম (কুষ্টিয়া), সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন (মৌলভীবাজার), যুব মহিলা লীগের সহসভাপতি আদিবা আনজুম মিতা (রাজশাহী), শিরিনা নাহার (খুলনা), ফেরদৌসী ইসলাম জেসী (চাঁপাইনবাবগঞ্জ), সিকদার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা জইনুল হক সিকদারের মেয়ে পারভীন হক সিকদার (শরীয়তপুর), খাদেজা নুসরাত (রাজবাড়ী), মহিলা আওয়ামী লীগ ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক শবনম জাহান শিলা (ঢাকা), খাদিজাতুল আনোয়ার (চট্টগ্রাম), আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের স্ত্রী ও ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জাকিয়া পারভীন খানম (নেত্রকোনা), তাহমিনা বেগম (মাদারীপুর), শিরীন আহমেদ (ঢাকা) এবং জিন্নাতুল বাকিয়া (ঢাকা)।