স্পিকারের স্বীকৃতি

বিরোধীদলীয় নেতা রওশন, উপনেতা জিএম কাদের

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদকে বিরোধীদলীয় নেতা এবং চেয়ারম্যান জিএম কাদেরকে উপনেতা পদে স্বীকৃতি দিয়েছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। গতকাল সোমবার সংসদ সচিবালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে গত কয়েকদিন ধরে সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির অভ্যন্তরীণ টানাপড়েনের আপাতত অবসান ঘটল।

এর আগে রোববার সংসদের অধিবেশন শেষ হওয়ার পরপরই জিএম কাদেরের নেতৃত্বে জাপার একটি প্রতিনিধি দল স্পিকারের কার্যালয়ে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করে। এ সময় জিএম কাদের দলের পক্ষ থেকে হাতে লেখা একটি চিঠি স্পিকারের কাছে হস্তান্তর করেন। ওই চিঠিতে বিরোধীদলীয় নেতা পদে রওশন এবং উপনেতা পদে নিজের নাম উল্লেখ করে দলীয় সিদ্ধান্ত আনুষ্ঠানিকভাবে স্পিকারকে জানান।

সংসদ সচিবালয়ের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, 'জাতীয় সংসদে সরকারি দলের  বিরোধিতাকারী সর্বোচ্চসংখ্যক সদস্য নিয়ে গঠিত সংসদীয় দলের নেতা রওশন এরশাদকে (ময়মনসিংহ-৪) জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালি বিধি অনুযায়ী বিরোধীদলীয় নেতা এবং উপনেতা (পারিতোষিক ও বিশেষাধিকার) অধ্যাদেশ মোতাবেক (১৮ লালমনিরহাট-৩) সংসদ সংদস্য গোলাম মোহাম্মদ কাদেরকে রিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী স্বীকৃতি প্রদান করেছেন।' আইন অনুযায়ী বিরোধীদলীয় নেতা মন্ত্রী ও উপনেতা প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদা ভোগ করেন।

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর দলের চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় নেতার পদ নিয়ে এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ ও ছোট ভাই জিএম কাদেরের মধ্যে বিরোধ চরমে পৌঁছে। গত ১৮ জুলাই জিএম কাদেরকে জাপার চেয়ারম্যান ঘোষণা করা হলে তা মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বিবৃতি দেন এরশাদপত্নী রওশন।

এরপর বিরোধীদলীয় নেতা হতে চেয়ে গত মঙ্গলবার জিএম কাদের স্পিকারকে চিঠি দিলে জাপায় জটিল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। রওশন এরশাদ স্পিকারকে পাল্টা চিঠি দেন। এ ছাড়া তাকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন তার অনুসারীরা। দলীয় প্রার্থী মনোনয়নের ক্ষমতা চেয়ে দু'জন পাল্টাপাল্টি চিঠি দেন নির্বাচন কমিশনে। এ অবস্থায় জাতীয় পার্টি আরেক দফা ভাঙনের মুখোমুখি হয়। কিন্তু গত শনিবার দেবর-ভাবি বসেন আলোচনার টেবিলে। ওই আলোচনায় জিএম কাদেরকে জাপার চেয়ারম্যান পদে মেনে নেন রওশনপন্থিরা। আর রওশনকে বিরোধীদলীয় নেতার পদে মেনে নেন কাদেরপন্থিরা।

এরপর রোববার রাতে জিএম কাদেরের স্বাক্ষর করা চিঠি যায় স্পিকারের কাছে।