কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মানা সাপেক্ষে দোকানপাট ও শপিংমল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আজ শুক্রবার ৯ এপ্রিল থেকে আগামী মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দোকানপাট ও শপিংমল খোলা রাখা যাবে। গতকাল বৃহস্পতিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন সমন্বয় অধিশাখা থেকে এ-সংক্রান্ত নির্দেশ জারি করা হয়।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় গত ৫ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে ১১ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত সারাদেশে কঠোর বিধিনিষেধ জারি করে সরকার। এই বিধিনিষেধের মেয়াদ আগামী রোববার রাত ১২টায় শেষ হবে। এই বিধিনিষেধের মধ্যেই গত রোববার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রজ্ঞাপনে সরকারি-বেসরকারি অফিস-আদালত ও ব্যাংক জরুরি প্রয়োজনে সীমিত পরিসরে খোলা রাখার সুযোগ দেওয়া হয়। এরপর গত বুধবার থেকে সিটি করপোরেশন এলাকায় সকাল-সন্ধ্যা গণপরিবহন সেবা চালু রাখার সিদ্ধান্তও দেয় সরকার।

রোববার নতুন নির্দেশনা :এমন প্রেক্ষাপটে লকডাউনের বিষয়েও নতুন কোনো সিদ্ধান্ত আসবে কিনা- সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নতুন করে নির্দেশনার কথা ভাবছেন। আগামী রোববার নতুন এই নির্দেশনা জারি করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কয়েকদিন ধরে দোকানপাট খুলে দিতে মালিক-কর্মচারীরা রাস্তায় বিক্ষোভ করছিলেন। তাদের এই বিক্ষোভ তাদেরই নিয়ন্ত্রণে ছিল না। একটি অসাধু চক্র বিক্ষোভের ফায়দা হাসিলের অপচেষ্টা করছিল। এ অবস্থায় দোকানপাট ও শপিংমল খুলে দেওয়ার নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। তবে অন্য বিধিনিষেধগুলো আগের মতোই কঠোরভাবে প্রতিপালন করতে হবে। দোকানপাট ও শপিংমলে প্রত্যেক ক্রেতা ও বিক্রেতাকে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে কঠোর নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। কেউ এ নির্দেশ অমান্য করছেন কিনা, সে ব্যাপারেও তদারকি করা হবে।


মন্তব্য করুন