প্রাণঘাতী করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যুও কমে আসছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমিত চারজনের মৃত্যু হয়েছে। গত বছরের ৬ মে এর চেয়ে কম তিনজনের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে করোনায় মোট ২৭ হাজার ৮০৫ জনের মৃত্যু হলো বলে গতকাল শুক্রবার জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

একই সঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২৩২ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। প্রায় দেড় বছরের মধ্যে এক দিনে এটিই সর্বনিম্ন সংক্রমণের ঘটনা। গত বছরের ১৫ এপ্রিল এর চেয়ে কম ২১৯ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল। এ নিয়ে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ১৫ লাখ ৬৭ হাজার ১৩৯ জনে পৌঁছাল।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমিত আরও ৫৬৪ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এর মধ্য দিয়ে করোনা সংক্রমিত মোট ১৫ লাখ ৩০ হাজার ৬৪৭ জন সুস্থ হয়ে উঠলেন।

গতকাল ৮৩২টি নমুনা পরীক্ষাগারে ১৭ হাজার ১০৫টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে ১৭ হাজার ১০০ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে ১ দশমিক ৩৬ শতাংশ মানুষের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে এক কোটি এক লাখ ৮৮ হাজার ৬২৩টি। এর বিপরীতে মোট শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৩৮ শতাংশ। করোনা সংক্রমিতদের মধ্যে সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৬৭ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

করোনা পরিস্থিতি বিশ্নেষণ করে দেখা যায়, যথারীতি শনাক্ত ও মৃত্যুর সূচকে ঢাকা বিভাগ শীর্ষে রয়েছে। গতকাল মোট শনাক্তের মধ্যে ১৬০ জন ঢাকা বিভাগের বাসিন্দা। আর রাজধানী ঢাকার বাসিন্দা ১২১ জন। এরপর চট্টগ্রাম ২৯ জন, রাজশাহী ১৯, সিলেটে আট, খুলনায় সাত, ময়মনসিংহ ছয়, বরিশাল দুই এবং রংপুরে একজন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।

মৃত্যুতেও শীর্ষে রয়েছে ঢাকা বিভাগ। এদিন ঢাকায় দু'জন, চট্টগ্রাম ও বরিশালে একজন করে করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে করোনায় কারও মৃত্যু হয়নি। এদিন মৃতদের সবাই সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে দু'জন পুরুষ এবং সমান সংখ্যক নারী।

মন্তব্য করুন