রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা হলেন শফিকুল ইসলাম, আশিকুর রহমান ও রাজিন ওরফে পলাশ। মঙ্গলবার বিকেলে তাদের রংপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আনা হলে বিচারক ফজলে এলাহী খান কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। কোর্ট জিআরও শহিদুল ইসলাম এসব জানান।

পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেস চন্দ্র রায় বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে পীরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে পাঠানো হয়। এ নিয়ে মোট ৬৯ জন গ্রেপ্তার হয়েছে।

সহিংসতার মূল হোতা র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া সৈকত মণ্ডল শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে আগেই সংগঠন থেকে বহিস্কার হয়েছিলেন জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে রংপুর মহানগর ছাত্রলীগ। গতকাল সংগঠনের সভাপতি শফিউর রহমান স্বাধীন ও সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ স্বাক্ষরিত এ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

কুমিল্লার ঘটনায় সিসিটিভি ফুটেজ দেখে জড়িতদের তালিকা করা হচ্ছে :গতকাল দিনভর অপেক্ষার পরও সিআইডির কর্মকর্তারা কুমিল্লায় ধর্ম অবমাননার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলার নথি হাতে পাননি। যদিও গত সোমবার পুলিশের পক্ষ থেকে গতকাল নথি হস্তান্তরের কথা ছিল। এর আগে রোববার রাতে পুলিশ সদর দপ্তরের এক চিঠিতে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তরের আদেশ হয়। রাতে সিআইডি কুমিল্লার পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান নথি না পাওয়ার বিষয়টি সমকালকে নিশ্চিত করেছেন। এ ছাড়া প্রথম ঘটনাস্থলসহ নগরীর বিভিন্ন এলাকার সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে বলে সিআইডি ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনওয়ারুল আজিম জানান, প্রয়োজনীয় কিছু ফাইলওয়ার্ক বাকি রয়েছে, যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে মামলার নথি ও উদ্ধার করা আলামত সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হবে। আজ বুধবার যে কোনো সময় এ মামলার নথি সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হতে পারে।

পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান বলেন, মামলাটি তদন্তের জন্য সিআইডিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সহসাই মামলার নথি পাব বলে আশা করছি। জড়িতরা যতই শক্তিশালী হোক না কেন, তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

কুমিল্লার ঘটনায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা সিটি করপোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কু, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইউছুফ মোল্লা টিপুসহ নেতাদের জড়ানোর জন্য ষড়যন্ত্র চলছে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। ওই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে কয়েকটি গণমাধ্যম ও কুচক্রী মহল তাদের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে। গতকাল নগরীর কান্দিরপাড়ে দক্ষিণ জেলা বিএনপি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ তোলেন দলটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলার সহসভাপতি সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।

চৌমুহনীর ঘটনায় বিএনপির ২ নেতাসহ গ্রেপ্তার ৮, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতার দায় স্বীকার :নোয়াখালীর চৌমুহনীতে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিএনপি নেতাসহ আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম এসব তথ্য জানিয়েছেন। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন সুধারাম থানার ৮ নম্বর ধর্মপুর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. সুমন ও হাতিয়া পৌর বিএনপির প্রচার সম্পাদক ছেরাজুল হক বেচু।

হামলার ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়সাল ইনাম কমল আদালতে দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। সোমবার রাতে নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। কমল দাবি করেন, হামলার ঘটনার সঙ্গে বিএনপি নেতা বরকত উল্লাহ বুলুসহ ১৫ জনের সম্পৃক্ততা রয়েছে। পুলিশ সুপার শহীদুল ইসলাম গতকাল তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতার জবানবন্দি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য বরকত উল্লাহ বুলুর মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করে এবং এসএমএস পাঠিয়েও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

চট্টগ্রামের ঘটনায় ভিপি নূরের অনুসারী হাবিবুল্লাহর জবানবন্দি :মহানগরের জেএম সেন হলে সাধারণ মুসল্লিদের সংঘবদ্ধ করে হামলার চেষ্টা চালানো হয় বলে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন অভিযুক্ত হাবিবুল্লাহ মিজান। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিনের আদালতে তিনি এ জবানবন্দি দেন বলে জানান কোতোয়ালি থানার ওসি নেজাম উদ্দিন। হাবিবুল্লাহ মিজান ভিপি নুরের নেতৃত্বাধীন বন্দর থানার ছাত্র অধিকার পরিষদের সাবেক আহ্বায়ক ও বর্তমান যুব অধিকার পরিষদের সদস্য।

ওসি জানান, জেএম সেন হলে হামলা মামলায় রিমান্ডে থাকা সাতজনকে আদালতে হাজির করা হয়। তাদের মধ্যে হাবিবুল্লাহ মিজান জবানবন্দি দিয়েছেন। জবানবন্দি শেষে আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন সংশ্নিষ্ট এলাকার ব্যুরো, অফিস ও প্রতিনিধিরা]





মন্তব্য করুন