করোনার মধ্যেও চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে। বেড়েছে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও। গত বছরের তুলনায় ২০২১ সালের মাধ্যমিক পর্যায়ের এই পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে পৌনে দুই লাখের বেশি পরীক্ষার্থী।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষায় মোট ২৯ হাজার ৩৫টি প্রতিষ্ঠান থেকে ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ শিক্ষার্থী অংশ নেবে।

করোনার কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে সারাদেশে এই পরীক্ষার জন্য মোট কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে তিন হাজার ৬৭৯টি। সুষ্ঠুভাবে আয়োজনের জন্য পরীক্ষা শুরুর এক সপ্তাহ আগে থেকেই, অর্থাৎ ৮ থেকে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গতকাল বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসএসসি পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতি তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি জানান, ২০২১ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় বসছে ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ শিক্ষার্থী। গত বছর এই সংখ্যা ছিল ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন। সে হিসাবে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে এক লাখ ৭৯ হাজার ৩৩৪ জন। বৃদ্ধির হার ৮ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, এবার শুধু গ্রুপভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়া হবে। সব বিষয়ে পরীক্ষা না হওয়ায় পরীক্ষা ব্যয় কমেছে। তাই পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণে আদায় করা টাকার অব্যয়িত অংশও ফেরত দেওয়া হবে।

পরীক্ষার প্রস্তুতি ও করণীয় বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। যৌক্তিক কারণে কারও দেরি হলে পরীক্ষার্থীকে নিজের নাম, রোল নম্বর, হলে প্রবেশের সময় ও বিলম্ব হওয়ার কারণ রেজিস্টার খাতায় লিখে প্রবেশ করতে হবে।

তিনি বলেন, প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা শ্রুতিলেখকের সহায়তায় পরীক্ষা দিতে পারবে। তাদের জন্য অতিরিক্ত ২০ মিনিট সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষার্থীদের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

মন্ত্রী জানান, এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় ১৮ লাখ ৯৯৮ জন, দাখিলে তিন লাখ এক হাজার ৮৮৭, এসএসসিতে (ভোকেশনাল) এক লাখ ২৪ হাজার ২২৮ পরীক্ষার্থী রয়েছে। পাশাপাশি বিদেশের আটটি দেশে ৪২৯ পরীক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। সারাদেশে এসএসসির জন্য কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে তিন হাজার ৬৭৯টি, দাখিলের জন্য ৭১০টি, ভোকেশনালের জন্য ৭৬০টি।

যশোর বোর্ড চেয়ারম্যানের দুর্নীতি প্রসঙ্গে :যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোল্লা আমীর হোসেনের বিরুদ্ধে বোর্ডের আড়াই কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের মামলা হওয়া প্রসঙ্গে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রী বলেন, দুদকের মামলা হয়েছে। এ বিষয়ে সরকারি বিধিবিধান অনুযায়ী যা হওয়ার তা-ই হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে আগামী বছরের এসএসসি পরীক্ষা পূর্বনির্ধারিত সময়, অর্থাৎ ফেব্রুয়ারির শুরুতে হচ্ছে না। আরেকটু সময় দিয়ে এই পরীক্ষা শুরু করা হবে।

মন্তব্য করুন