টানা তিন দিন ধরে দেশে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে করোনা শনাক্তের হার দেড় শতাংশের নিচে থাকলেও গত চব্বিশ ঘণ্টায় তা কিছুটা বেড়েছে। এই সময়ে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ছিল ১ দশমিক ৫৩ শতাংশ। এর আগের তিন দিন এ হার ছিল যথাক্রমে ১ দশমিক ৪৪ শতাংশ, ১ দশমিক ৩৯ শতাংশ ও ১ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

গতকাল বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পর্যালোচনা করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

গত চব্বিশ ঘণ্টায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমিত আরও ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট ২৭ হাজার ৮৪১ জনের মৃত্যু হলো। একই সঙ্গে গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৩০৬ জনের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে দেশে মোট করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ১৫ লাখ ৬৮ হাজার ৫৬৩ জনে পৌঁছল। এর বিপরীতে গত চব্বিশ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমিত ২৮৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এ নিয়ে করোনা সংক্রমিত মোট ১৫ লাখ ৩২ হাজার ৪৬৮ জন সুস্থ হয়ে উঠলেন।

গত চব্বিশ ঘণ্টায় ৮৩৩টি নমুনা পরীক্ষাগারে ১৯ হাজার ৯১৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আগের দিনের নমুনাসহ মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ হাজার ৯৫১টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১ কোটি ২ লাখ ৮২ হাজার ৫৮টি। এর বিপরীতে মোট শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ২৬ শতাংশ। করোনা সংক্রমিতদের মধ্যে সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৭০ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

চার বিভাগ মৃত্যুশূন্য :গত চব্বিশ ঘণ্টায় দেশের চার বিভাগে করোনা সংক্রমিত কারও মৃত্যু হয়নি। এ বিভাগগুলো হলো- বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ। গত চব্বিশ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে তিনজন, খুলনায় দু'জন, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিভাগে একজন করে করোনা সংক্রমিত ব্যক্তি মারা গেছেন। গত চব্বিশ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ৬ জন এবং বেসরকারি হাসপাতালে একজন চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত চব্বিশ ঘণ্টায় মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে ৩ জন পুরুষ এবং ৪ জন নারী। বয়স বিশ্নেষণে দেখা যায়, গত চব্বিশ ঘণ্টায় মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে ৭১ থেকে ৮০ বছর বয়সী দু'জন, ৬১ থেকে ৭০ বছর বয়সী একজন, ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী দু'জন এবং ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী একজন রয়েছেন। তবে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তে ঢাকা শীর্ষে রয়েছে।







মন্তব্য করুন