নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে নিজের পরাজয়ের খবরে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, 'এটা আমাদের নয়, সরকারের পরাজয়। জনগণের ভালোবাসায় আমরা জয়ী।'

গতকাল রোববার রাতে নাসিক নির্বাচনের বেসরকারি ফলে পরাজিত হওয়ার খবরে প্রতিক্রিয়া জানাতে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করেন স্বতস্ত্র প্রার্থী তৈমূর। এ সময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, 'এই নির্বাচনকালে আমার সঙ্গে, আমার সমর্থকদের সঙ্গে যেসব ঘটনা ঘটেছে তা আপনাদের জানিয়েছি। সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় আমার সমন্বয়ককে পোলিং এজেন্টের কাগজসহ গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর আমার লোকজন প্রতিদিনই গ্রেপ্তার হতে থাকে। ভোট গ্রহণের দিনেও আমার লোকজনকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তুলে নিয়ে গেছে।'

তিনি বলেন, 'আজ সকাল থেকে আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বন্দরের সমন্বয়ককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমার চিফ এজেন্টের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। এ অবস্থায় একটা মানুষ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়ে কীভাবে ঠিক থাকতে পারে। তার পরও জনগণ আমাকে সমর্থন দিয়েছে।'

তৈমূর বলেন, 'বেশকিছু কেন্দ্রে ইভিএম ত্রুটিপূর্ণ ও ধীরগতির ছিল। অনেক মানুষ ভোট দিতে পারেনি। ইভিএমের কারচুপির জন্য আমাদের পরাজয় বরণ করতে হয়েছে। আমি সবাইকে ধন্যবাদ জানাই যারা নির্বাচনে আমার পাশে থেকে সহযোগিতা করেছেন। আমার লোকজন বাড়িতে থাকতে পারেনি। এটিএম কামালের মতো লোককে ঘেরাও করা হয়েছে গ্রেপ্তার করার জন্য।'

তিনি আরও বলেন, 'এটা খেলা হয়েছে সরকার বনাম জনগণ ও সরকার বনাম তৈমূর আলম খন্দকার। আমি সিটি করপোরেশনের জন্য কী করেছি নারায়ণগঞ্জবাসী জানে। বিএনপি আমার রক্তের সঙ্গে মিশে গেছে। বিএনপিকে ছেড়ে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।'

এর আগে সকালে ভোট গ্রহণের পর নির্বাচনের পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তৈমূর বলেছিলেন, 'নির্বাচন কেমন হচ্ছে তা এখনই বলার সময় নয়। ভোট গ্রহণের পর এ নিয়ে বলতে পারব।'

তবে নির্বাচনে তেমন কোনো সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি। কিছু কিছু ওয়ার্ডে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বেশ তৎপর দেখা গেছে।

মন্তব্য করুন