ঠাণ্ডার বাপ!

প্রকাশ: ১৭ এপ্রিল ২০১৮      

মোহসেনা জয়া

'ঠাণ্ডার বাপ'।

চুপচাপ ও শান্ত স্বভাব।

চলাফেরা ও কতাবার্তায় লাজুক। দৌড়ঝাঁপ, হইচই- এসবের মধ্যেই নেই। তের-চৌদ্দ বছর বয়সী কিশোরদের মধ্যে যে চাঞ্চল্য থাকা উচিত, তা নেই তার মধ্যে। নরম কথাবার্তা, লাজুক স্বভাব ও ঠাণ্ডা মেজাজের জন্য সে সুপরিচিত। পাড়া-প্রতিবেশী সবাই তাকে ভালোবাসে। পাড়ার বৌ-ঝিরা ডাকে 'ঠাণ্ডার বাপ'। তবে পরিবারের কেউ তাকে ডাকে টুনু নামে, কেউ আবার টুনু মিয়া। টুনুর শরীর রোগাটে এবং লম্বা। যাকে বলা যায় ঢ্যাঙঢ্যাঙা। দেহের তুলনা মাথাটা বড়। টুনু থাকে ময়মনসিংহ। পড়ে মৃত্যুঞ্জয় স্কুলে। স্কুলের পথে পড়ে 'আগফা' স্টুডিও। মূলত ফটো তোলার দোকান। এখানে প্রায়ই কয়েকজন শিল্পী আসেন। তারা কলকাতা আর্ট স্কুলের ছাত্র। স্টুডিওর লোকেরা জানে টুনুও ছবি আঁকে। তারা তার খাতা দেখে। ছবির প্রশংসা করে। উৎসাহ দেয় আরও ছবি আঁকার জন্য।

এর ভেতর একদিন তখনকার ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা 'স্টেটসম্যান'-এ একটা খবর দেখে টুনু নড়েচড়ে বসে। দেখে, বোম্বের এক ভদ্রলোক ছোটদের ছবি আঁকার প্রতিযোগিতার আহ্বান করেছে। 'গলফ' খেলার একটি ছবি দেখে বড় করে রঙ দিয়ে এঁকে পাঠাতে হবে সেই ছবি।

টুনু প্রতিযোগিতার জন্য দুটো ছবি আঁকে। কিন্তু পাঠাবে কেমন করে? পাঠাতে হলে তো খরচ লাগবে। তার কাছে তো পয়সা নেই। আর ছবি দেখে সবাই কী বলবে! কেমন হয়েছে কে জানে? বাবাকে বলার সাহসও পাচ্ছে না। এসব ভেবে লাজুক ও ঠাণ্ডা স্বভাবের ঠাণ্ডার বাপ টুনু তার ছবি দুটো তোশকের নিচে রেখে দিল। যেখানে সে তার আঁকা আরও অনেক ছবি রেখেছে সবার চোখের আড়ালে।

কিছুদিন পর একদিন বাবা অফিস থেকে ফিরে হাসি হাসি মুখে ছেলের সামনে এসে দাঁড়ালেন। হাতে একটি খবরের কাগজ। 'স্টেটসম্যান'। কী ব্যাপার! টুনুর আঁকা ছবি পুরস্কার পেয়েছে। তার আঁকা ছবি পত্রিকায় ছাপা হয়েছে। কেমন করে? টুনু তো ছবি পাঠায়নি, আসলে বাবা বুঝতে পেরে নিজেই টুনুর ছবিটা পাঠিয়ে দিয়েছিলেন প্রতিযোগিতায়। আর টুনু ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের মধ্যে প্রথম হয়ে পুরস্কার জিতে নেয়। এরপর টুনুর অনেক গল্প। ছোট্ট টুনু বড় হতে হতে একদিন আকাশ ছুঁয়ে ফেলে। কীভাবে? তা জানতে পারবে হাশেম খানের লেখা 'জয়নুল গল্প' বইটি পড়ে। ও আচ্ছা টুনুটা হচ্ছে আমাদের জয়নুল আবেদিন। যাকে সবাই চিনে শিল্পাচার্য হিসেবে। শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনকে নিয়ে লেখা বইটি তোমাদের জন্য প্রকাশ করেছে বাংলাপ্রকাশ। দাম রাখা হয়েছে ২৫০ টাকা। বইটির প্রচ্ছদ এবং ভেতরের নকশাও করেছেন চিত্রশিল্পী ও লেখক হাশেম খান। বইটি পড়ে জানিও, কেমন লাগলো তোমাদের! হ
ট্রাম্প-কিম দ্বিতীয় বৈঠক ফেব্রুয়ারিতে

ট্রাম্প-কিম দ্বিতীয় বৈঠক ফেব্রুয়ারিতে

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম ...

বাংলাদেশ দূতাবাসে ভাঙচুর তদন্ত করছে কুয়েত

বাংলাদেশ দূতাবাসে ভাঙচুর তদন্ত করছে কুয়েত

বাংলাদেশ দূতাবাসে ভাঙচুর এবং কর্মকর্তাদের নির্যাতনের ঘটনা তদন্ত করছে কুয়েত ...

আজ ঢাকার সড়ক ব্যবস্থাপনা যেমন

আজ ঢাকার সড়ক ব্যবস্থাপনা যেমন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের নিরঙ্কুশ বিজয় উদযাপনে বিজয় সমাবেশ ...

আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ আজ

আওয়ামী লীগের বিজয় সমাবেশ আজ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের নিরঙ্কুশ বিজয় উদযাপনে বিজয় সমাবেশ ...

ইউএনও আসার খবরে বাবা-মেয়ে উধাও

ইউএনও আসার খবরে বাবা-মেয়ে উধাও

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বড়গাঁও ইউনিয়নে বড়গাঁও গ্রামে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ...

ভূমির রাজস্ব যায় কই

ভূমির রাজস্ব যায় কই

ভূমি খাত থেকে আদায় হওয়া রাজস্বের একটি বড় অংশ সরকারি ...

ছয় বছরে প্রাণহানি ২৪০ নিখোঁজ দুই শতাধিক

ছয় বছরে প্রাণহানি ২৪০ নিখোঁজ দুই শতাধিক

২০১২ সালের ১২ মার্চ থেকে চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ...

হাওরে পাখি নেই আগের মতো

হাওরে পাখি নেই আগের মতো

একসময় শীত এলেই পরিযায়ী পাখির কলরবে মুখর হতো নাসিরনগরের মেদীর ...