প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে সেপ্টেম্বরে

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০১৭

আনোয়ার ইব্রাহীম


শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিতে গত সেপ্টেম্বরে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ধারণ করা শেয়ারের পরিমাণ বেড়েছে। পরিশোধিত মূলধন বিবেচনায় টাকার অঙ্কে এর পরিমাণ সাড়ে ১৮ কোটি টাকা। তবে নতুন বিনিয়োগসহ বাজারমূল্য বৃদ্ধির কারণে বাজার মূলধন বিবেচনায় প্রতিষ্ঠানগুলোর ধারণ করা মোট শেয়ারের মূল্য প্রায় ৩৪৭ কোটি টাকা বেড়েছে।
দুই শেয়ারবাজার ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য মিলেছে। তালিকাভুক্ত ২৯৮ কোম্পানির মধ্যে ছয়টি ছাড়া বাকিগুলোর সেপ্টেম্বর শেষে গতকাল শনিবার পর্যন্ত ক্যাটাগরি অনুযায়ী শেয়ার ধারণের তথ্য পাওয়া গেছে। যে ছয় কোম্পানির তথ্য মেলেনি, সেগুলো হলো- নর্দার্ন জুট, সোনালী আঁশ, সিএনএ টেক্সটাইল, সেন্ট্রাল ফার্মা, গ্রীনডেল্টা ও প্রাইম ইন্স্যুরেন্স। এই ছয় কোম্পানির সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য বিবেচনায় সার্বিক শেয়ার ধারণের হিসাব পর্যালোচনা করা হয়েছে।
প্রাপ্ত তথ্য বিশ্নেষণে দেখা গেছে, পরিশোধিত মূলধন বিবেচনায় ১০১ কোম্পানিতে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার ধারণ বেড়েছে। এর মধ্যে কোম্পানির মোট শেয়ারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ধারণ করা শেয়ারের হার প্রায় এক শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ প্রায় ৩৮ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে ২৯টিতে। বিপরীতে ১৪৮ কোম্পানি থেকে এ ধরনের বিনিয়োগ কমেছে। এর মধ্যে কমপক্ষে প্রায় এক শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ সোয়া ২৭ শতাংশ শেয়ার কমেছে ৬৭ কোম্পানিতে।
তালিকাভুক্ত ২৯৮ কোম্পানির বর্তমান পরিশোধিত মূলধন ৫৬ হাজার ৭৭২ কোটি টাকা। এর মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক কোম্পানির কেনা শেয়ারের মূল্য (অভিহিত মূল্যে) ১০ হাজার ৫২৫ কোটি টাকা, যা মোটের ১৮ দশমিক ৫৪ শতাংশ। অন্যদিকে সেপ্টেম্বর শেষে তালিকাভুক্ত সব কোম্পানির সব শেয়ারের বাজারমূল্য (বাজার মূলধন) ছিল তিন লাখ ৪৫ হাজার ৯৩৮ কোটি টাকা। এতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশ ৫০ হাজার ২৬৩ কোটি টাকা, যা মোট ১৪ দশমিক ৫৩ শতাংশ।
শেয়ার ধারণ বেড়েছে :সর্বাধিক ৩৮ শতাংশ শেয়ার ধারণ বেড়েছে স্যোসাল ইসলামী ব্যাংকে। বড় কয়েকটি ব্যবসায়িক গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান এ শেয়ার কিনেছে। গত সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংকটিতে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ারের অংশ বেড়ে ৪৯ দশমিক ৫৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। তবে চলতি মাসে প্রতিষ্ঠানগুলো কিছু শেয়ার বিক্রি করেছে বলে তথ্য মিলেছে।
এর পরের অবস্থানে থাকা ঢাকা ইন্স্যুরেন্সে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ধারণ করা শেয়ারের পরিমাণ ১৬ দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়ে ৩৩ দশমিক ৩৩ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্সে ৪ দশমিক ৭৮ শতাংশ বেড়ে ২০ শতাংশ ছাড়িয়েছে। এ ছাড়া অঘ্নি সিস্টেমসে ৩ শতাংশ বেড়ে প্রায় সাড়ে ১৭ শতাংশ, ইফাদ অটোসে সোয়া ২ শতাংশ বেড়ে সাড়ে ২০ শতাংশ ছাড়িয়েছে। এএফসি এগ্রো বায়োটেকে ২ শতাংশ বেড়ে ৩৫ দশমিক ৩৭ শতাংশে ও আর্গন ডেনিমে ২ শতাংশ বেড়ে ২৪ দশমিক ৬৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।
গত মাসে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার ধারণ এক থেকে দুই শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে প্যাসিফিক ডেনিম, কাশেম ড্রাইসেল, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স, সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স, প্রিমিয়ার লিজিং, আরামিট লিমিটেড, ওরিয়ন ফার্মা, ন্যাশনাল হাউজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স, আমরা টেকনোলোজিস, দেশবন্ধু পলিমার, এনভয় টেক্সটাইল, অ্যাপোলো ইস্পাত, ফনিক্স ফাইন্যান্স, খুলনা পাওয়ার, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, ওরিয়ন ইনফিউশনস ও আফতাব অটোমোবাইলসে।
শেয়ার ধারণ কমেছে :প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স থেকে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা তাদের বিনিয়োগের বড় অংশ প্রত্যাহার করেছেন। গত আগস্ট শেষে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ধারণ করা ৪৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ থেকে ১৪ দশমিক ৫৮ শতাংশই বিক্রি করেছেন তারা। ফলে গত সেপ্টেম্বর শেষে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ারের পরিমাণ কমে মোট শেয়ারের ২৯ দশমিক ০৭ শতাংশে নেমেছে।
শেয়ার ধারণের হার হ্রাসে এর পরের অবস্থানে থাকা ইনটেক অনলাইন থেকে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার ১২ দশমিক ২৮ শতাংশ কমে ১৩ দশমিক ৭৮ শতাংশে, ফু-ওয়াং সিরামিক থেকে ১১ দশমিক ১১ শতাংশ কমে ৩০ দশমিক ১৬ শতাংশে নেমেছে।
আলহাজ টেক্সটাইল থেকে কমেছে ৯ দশমিক ৬৮ শতাংশ। কোম্পানির মোট শেয়ার থেকে প্রাতিষ্ঠানিক অংশ ৮ থেকে সোয়া ৮ শতাংশ কমেছে আনলিমা ইয়ার্ন, প্রাইম টেক্সটাইল ও স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক থেকে। ৭ থেকে সাড়ে ৭ শতাংশ কমেছে ইনফরমেশন সার্ভিসেস ও ওয়েস্টিন মেরিন শিপইয়ার্ড থেকে। সাড়ে ৬ থেকে প্রায় ৭ শতাংশ পর্যন্ত কমেছে নুরানী ডাইং ও সিএমসি কামাল থেকে। পৌনে ৬ থেকে প্রায় ৬ শতাংশ পর্যন্ত কমেছে ফরচুন সুজ ও ন্যাশনাল টি কোম্পানি থেকে।