সিআইপি হলেন ১৭৮ ব্যবসায়ী

প্রকাশ: ০৫ আগস্ট ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

রফতানি বাণিজ্যে বিশেষ অবদান এবং বাণিজ্য সংগঠনের নেতা হিসেবে ১৭৮ ব্যবসায়ীকে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বা সিআইপি মনোনীত করেছে সরকার। গত ৩১ জুলাই তাদের তালিকা গেজেট আকারে প্রকাশ করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ২০১৫ সালে রফতানিতে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ১৩৬ জন এবং পদাধিকার বলে এফবিসিসিআইর পরিচালক ও ব্যবসায়ী নেতা হিসেবে ৪২ জন সিআইপি মর্যাদা পেয়েছেন। পরে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের হাতে সিআইপি কার্ড দেওয়া হবে। ২০১৪ সালে ১৬৪ জন সিআইপি হয়েছিলেন। তারা এক বছর পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবেন।

সিআইপি হয়েছেন যারা :পাটপণ্য খাতে পপুলার জুট এক্সচেঞ্জের হাসান আহমেদ, বাবুল জুট ট্রেডিংয়ের নুরুল ইসলাম, রেজা জুট ট্রেডিংয়ের সেলিম রেজা, ওহাব জুট ট্রেডিংয়ের শায়লা ফারুক, আকুনজি ব্রাদার্সের আকুনজি মোহাম্মদ হারুনার রশীদ; পাটজাত দ্রব্য খাতে আকিজ জুট মিলসের শেখ নাসির উদ্দিন, জনতা জুটের নাজমুল হক, সাদাত জুটের মাহমুদুল হক, রাজ্জাক জুটের আবুল বাসার খান, নিউ ঢাকা ইন্ডাস্ট্রিজের মো. হুমায়ূন কবির, ওহাব জুট মিলসের শেখ ফারুক হোসেন ও আলতু খান জুট মিলসের লোকমান হোসেন। চামড়াজাত দ্রব্য খাতে এপেক্স ট্যানারির আবদুল মাজেদ, এসএএফ ইন্ডাস্ট্রিজের শেখ মোমিন উদ্দিন, পিকার্ড বাংলাদেশের সাইফুল ইসলাম, বে ফুটওয়্যারের জিয়াউর রহমান, এবিসি ফুটওয়্যারের জয়নাল আবেদিন মজুমদার ও লেদারেক্স ফুটওয়্যারের নাজমুল হাসান।

হিমায়িত খাদ্য রফতানিতে মুলিয়ারচর সি ফুডসের মুছা মিয়া, ফ্রেশ ফুডসের তৌহিদুর রহমান, সি ফ্রেশের মাসুদুর রহমান, আর্ক সি ফুডসের মিয়া মোহাম্মদ আক্তারুজ্জামান, সালাম সি ফুডসের মিয়া মোহাম্মদ আবদুস সালাম, মীনহার গ্রুপের হাবিব উল্যাহ খান ও সি ফিশার্স গ্রুপের আবদুর রউফ চৌধুরী।

ওভেন পোশাক খাতে কসমোপলিটন ইন্ডাস্ট্রিজের তানভীর আহমেদ, অনন্ত অ্যাপারেলসের শরীফ জহীর, ইন্টারফ্যাব শার্টের আহসান কবির খান, সাইনেস্ট অ্যাপারেলসের আলী আজিম খান, স্মার্ট জিনসের মুজিবুর রহমান, তুসুকা ট্রাউজারের আরশাদ জামাল, ক্যাসিওপিয়া ফ্যাশনের তানভীর আহমেদ, এনভয় ফ্যাশনের আব্দুস সালাম মুর্শেদী, স্প্যারো অ্যাপারেলসের মোস্তাজিরুল শোভন ইসলাম, আলিফ গার্মেন্টসের আজিজুল ইসলাম, রাসেল গার্মেন্টসের আক্কাস উদ্দিন মোল্লা, সাদ সান অ্যাপারেলসের মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম, এমবিএম গার্মেন্টসের ওয়াসিম রহমান, ব্যান্ডে ফ্যাশনসের ফেরদৌস পারভেজ বিভন, রিও ফ্যাশন ওয়্যারের আবু বকর সিদ্দিক খান, ডার্ড গার্মেন্টসের মেডি ইতেমাদ উদ দৌলাহ, তারাসিমা গ্রুপের মিরান আলী ও ওয়েল গ্রুপের সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

নিট পোশাক খাতে জিএমএম কম্পোজিট নিটিংয়ের গোলাম মুস্তফা, ফোর এইস ফ্যাশনসের গাওহার সিরাজ জামিল, ভিয়েলাটেক্সের কানিজ ফাতেমা জেরিন, ইন্টার ফাস্ট অ্যাপারেলসের নাজিম উদ্দিন আহমেদ, মাল্টি ফ্যাবসের মহিউদ্দিন ফারুকী, মডেল ডি ক্যাপিট্যালের এমডি মাসুদুজ্জামান, মেট্রো নিটিংয়ের অমল পোদ্দার, অবন্তী কালারের এএইচ আসলাম সানী, ডার্ড কম্পোজিটের নাবিল উদ দৌলাহ, দিগন্ত সোয়েটার্সের মো. কামাল উদ্দিন, গার্মেন্টস এক্সপোর্ট ভিলেজের এ কে এম বদিউল আলম, ফখরুদ্দিনের আসিফ আশরাফ, পলো কম্পোজিটের এম এ জলিল অনন্ত, সেনটেক্সের জসিম উদ্দিন আহমেদ, আদুরীর আব্দুল কাদির মোল্লা, লোগজের আমির হামজা সরকার, ডিঅ্যান্ডএস ফ্যাশনের মোহাম্মদ আলী তালুকদার, আহসান কম্পোজিটের কামরুল আহসান, বী-কন নিটের প্রীতি পোদ্দার, ফটিস গার্মেন্টসের শাহাদাত হোসেন, নেটওয়ার্ক ক্লোথিংয়ের বোরহান উদ্দিন, ইব্রাহিম নিটের কানিজ ফাতিমা, লাক্সমা সোয়েটার্সের সাফিনা রহমান, সনেট টেক্সটাইলের হুমায়ন কবির চৌধুরী, ড্রেস আপের গোলাম মোস্তফা, প্যাপলিন নিটের নুরুল আলম চৌধুরী, দিইউ বাংলাদেশের রানা শফিউল্লাহ, আরএসআই অ্যাপারেলসের অঞ্জন শেখর দাশ, সিম ফেব্রিক্সের মোজাফফর হোসেন, মেঘনা নিট কম্পোজিটের মোখলেছুর রহমান, ডিবিএল গ্রুপের আবদুল কাদের, পলমল গ্রুপের নাফিস সিকদার, ইসলাম গ্রুপের সাকের আহমেদ, ক্লিফটন গ্রুপের মহিউদ্দিন চৌধুরী, কেডিএস গ্রুপের খলিলুর রহমান, স্টার লাইট গ্রুপের সুলতানা জাহান, লিবার্টি গ্রুপের শামসুজ্জামান, মাসকো গ্রুপের আহমেদ আরিফ বিল্লাহ, হান্নান গ্রুপের এ বি এম সামছুদ্দিন, এপিএস গ্রুপের শামীম রেজা ও জে কে গ্রুপের জাহাঙ্গীর আলম খান। এ ছাড়া সিরামিক, প্লাস্টিক, ওষুধ, কৃষি ও কৃষি প্রক্রিয়াজাতসহ বিভিন্ন খাতের রফতানিকারকরা সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন।