চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে হবে আলাদা চামড়া শিল্পনগরী

শিল্প উন্নয়ন পরিষদের সভায় শিল্পমন্ত্রী

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

দেশে চট্টগ্রাম ও রাজশাহী অঞ্চলে দুটি আলাদা চামড়া শিল্পনগরী গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি বলেছেন, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বাজারে জুতা ও চামড়া পণ্যের বিশাল সম্ভাবনা কাজে লাগাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী এ দুটি শিল্পনগরী গড়ে তোলা হবে। ইতিমধ্যে শিল্পনগরীর স্থান নির্ধারণের কাজ শুরু হয়েছে।

রোববার শিল্প মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত জাতীয় শিল্প উন্নয়ন পরিষদের নির্বাহী কমিটির (ইসিএনসিআইডি) সভায় এ তথ্য জানান শিল্পমন্ত্রী। সভায় জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের সচিব আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম, কৃষি সচিব মো. নাসিরুজ্জামান, শিল্প মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আবদুল হালিম, এফবিসিসিআই সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনসহ সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় দেশব্যাপী শিল্পায়ন প্রক্রিয়া জোরদারের বিষয়ে আলোচনা হয়। এ সময় ক্লাস্টারভিত্তিক শিল্প কারখানায় ঋণসুবিধা বাড়ানোর আহ্বান জানান উদ্যোক্তারা।

সভায় আগামী এক মাসের মধ্যে জাহাজ নির্মাণ শিল্প নীতিমালার খসড়া চূড়ান্ত করার সিদ্ধান্ত হয়। পাশাপাশি দেশব্যাপী টেকসই ক্ষুদ্র, কুটির ও মাঝারি শিল্প খাত বিকাশের লক্ষ্যে বিসিকের আওতায় 'ওয়ান স্টপ সার্ভিস' দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিসিক ইতিমধ্যে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ক্ষুদ্র শিল্পের নিবন্ধন সেবা চালু করেছে বলে সভায় জানানো হয়। সভায় জেলাভিত্তিক কাঁচামাল সম্ভাবনার ওপর প্রাক-সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য বিসিককে নির্দেশনা দেওয়া হয়। সভায় শিল্পমন্ত্রী নিরবচ্ছিন্ন খাদ্য উৎপাদনের স্বার্থে বিসিআইসির সার কারখানাগুলোতে নিয়মিত গ্যাস সরবরাহের ওপর গুরুত্ব দেন। তিনি বলেন, শিল্প কারখানায় গ্যাস সংযোগ বন্ধ না করে সিস্টেমলস কমানোর ওপর নজর দিতে হবে। তিনি গৃহস্থালি ও পরিবহনে জ্বালানি হিসেবে সিলিন্ডার ও এলএনজি ব্যবহার করে শুধু শিল্প কারখানায় প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহের পরামর্শ দেন। এ ছাড়া শিল্পমন্ত্রী ছোবড়াসহ নারেকেল দিয়ে উৎপাদিত শিল্পপণ্য বৈচিত্র্যকরণের লক্ষ্যে লাগসই প্রকল্প গ্রহণের নির্দেশ দেন।