বাহারি ফুলের পসরায় রঙিন বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্র

প্রকাশ: ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

বাহারি রঙের ফুল ও সারি সারি ফুলগাছে সাজানো ছোট ছোট ঘর। যেন এক পরিকল্পিত বাগান। ইট-পাথরের এই নগরে অস্থায়ী ফুলের এ বাগান বসেছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি)। রুক্ষ এ নগরীর ভবনগুলোতেও প্রকৃতির সাজে এমন সজীবতার সাজানো সম্ভব- তারই নমুনা তৈরি করেছেন এ খাতের উদ্যোক্তারা।

গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা চেম্বার অব কমার্সের আয়োজনে আন্তর্জাতিক ফুলের প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম। তিন দিনের এ মেলা আগামীকাল শনিবার শেষ হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এ অস্থায়ী বাগান ঘুরে দেখার পাশাপাশি নানা প্রজাতির ফুল ও ফুলের গাছ কেনার সুযোগ আছে। এসব ফুলের চারা ১০০ থেকে

১৫০ টাকা ও গাছ ৩০০ থেকে দেড় হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

ফুলের দেশে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ। সাম্প্রতিক সময়ে দেশের মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে নানা স্তরে ফুলের ব্যবহার বেড়েছে। এ কারণে ফুলের বাণিজ্যিক চাষাবাদ অর্থনীতিতে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত করেছে বলে মনে করেন বিডার চেয়ারম্যান।

বর্তমান ১ হাজর ২০০ কোটি টাকার ফুলের বাজার বহুগুণ বাড়ানোর সুযোগ আছে। সম্ভাবনাময় এ খাত এগিয়ে নিতে স্বল্প হারে ঋণ সুবিধার পাশাপাশি সহজলভ্য আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবস্থা ও ব্যবহারের প্রশিক্ষণ দিতে হবে বলে মনে করেন ঢাকা চেম্বারের সভাপতি আবুল কাসেম খান।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আব্দুর রউফের মতে, ফুল খাতের সম্ভাবনা আরও কাজে লাগাতে সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে এগিয়ে নিতে হবে।

কৃষি মন্ত্রণালয় ফুলের জন্য স্থায়ী পাইকারি বাজার স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এর বাস্তবায়ন দ্রুত শেষ করা প্রয়োজন বলে মনে করেন বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির সভাপতি আব্দুর রহিম।

ফুল চাষে দক্ষতা উন্নয়নে এ দেশের প্রায় ৩ হাজার কৃষককে প্রশিক্ষণ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন ইউএসএইডের পরিচালক থমাস পোপ। আগামীতেও এ দেশে ইউএসএইড সহযোগিতা করবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

১৯৮৩ সালে যশোরের ঝিকরগাছায় বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষের যাত্রা শুরুর ইতিহাস তুলে ধরেন ইউএসএইডের পরামর্শক ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব আনোয়ার ফারুক। তিনি মনে করেন, দেশে উপযোগী জমি ও সহায়ক জলবায়ুর কারণে ফুলের চাষ বাড়ছে।

উদ্যোক্তাদের মতে, এখন ফুলের ব্যবহার বাড়ছে। ফলে লাভজনক ব্যবসা ফুল চাষে এখন দেশের ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের মধ্যে আর সীমাবদ্ধ নেই। চলতি বছরে পঞ্চগড়ে দেড়শ' বিঘা জমিতে ফুল চাষ, চারা উৎপাদনের বাগান করেছে বলে জানান মেটাল বায়োটেক নার্সারির ব্যবস্থাপক মুহাম্মদ মাহবুব-ই-খোদা।

লাভজনক ফুল চাষের বর্ণনা দেন ডানকান অর্কিড কেমিলিয়া ফাউন্ডেশনের বাগান ব্যবস্থাপক অমল সাহা। তার মতে, অন্য ফসলের চেয়ে ফুল চাষ অনেক বেশি লাভজনক। আড়াই ফুট থেকে ৬০ ফুট জায়গায় ৫০০ ফুল গাছ চাষে বছরে গড়ে ৮০০ ফুল পাওয়া যায়। প্রতিটি ফুল ১২ টাকায় বিক্রি হলে ৯ হাজার ৬০০ টাকা আসে। এতে ব্যয় হয় বছরে গড়ে ৩ হাজার টাকা।
শুরুতেই উইকেট মিরাজের

শুরুতেই উইকেট মিরাজের

উইন্ডিজ শিবিরে প্রথম আঘাত হেনেছেন বাংলাদেশ স্পিনার মেহেদি মিরাজ। ওয়েস্ট ...

না খেয়েই মারা গেল শিশুটি!

না খেয়েই মারা গেল শিশুটি!

অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত পার হওয়ার সময় আইনশৃ্ঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের হাতে ...

টেকনাফে 'বন্দুকযুদ্ধে' তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী নিহত

টেকনাফে 'বন্দুকযুদ্ধে' তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত ...

হার্ডিঞ্জ ব্রিজে ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে ৩ জনের মৃত্যু

হার্ডিঞ্জ ব্রিজে ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে ৩ জনের মৃত্যু

পাবনার ঈশ্বরদীতে পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজে চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে ...

বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ...

উড়ছে টাকা, হারছে রাজনীতি

উড়ছে টাকা, হারছে রাজনীতি

টাকার কাছে কি হেরে যাবে রাজনীতি? এ আশঙ্কাই ঘুরপাক খাচ্ছে ...

উত্তাপের সঙ্গে মিশে আছে উত্তেজনাও

উত্তাপের সঙ্গে মিশে আছে উত্তেজনাও

সারাদেশের ৩০০ নির্বাচনী এলাকার মধ্যে ঢাকা-১ আসন সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। ঢাকা ...

সরব এশিয়া-ইউরোপ

সরব এশিয়া-ইউরোপ

পাকিস্তান সেনাবাহিনীর গণহত্যা ও নৃশংসতায় বিক্ষুব্ধ হয়ে ইউরোপ ও এশিয়ার ...