মোবারকগঞ্জ চিনিকলে কৃষকের পাওনা ২৫ কোটি টাকা

প্রকাশ: ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯     আপডেট: ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

আখ বিক্রির ২৫ কোটি টাকা না পেয়ে ঝিনাইদহের সাড়ে পাঁচ হাজার কৃষক করুণ অবস্থার মধ্যে পড়েছেন। প্রতিদিনই তারা মোবারকগঞ্জ চিনিকলে গিয়ে কর্মকর্তাদের কাছে ধরনা দিচ্ছেন। তবুও মিলছে না টাকা। জনপ্রতিনিধি ও সিবিএ নেতাদের কাছেও যাচ্ছেন তারা।

চিনিকল কর্তৃপক্ষ বলছে, কৃষকের কাছ থেকে বাকিতে কেনা আখের উৎপাদিত চিনি বিক্রি না হওয়ায় ওই টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে সময়মতো টাকা না পেয়ে চিনিকলের আওতাধীন আখচাষিদের দিন কাটছে কষ্টের মধ্যে। সর্বশেষ গত সোমবার ওই টাকা পরিশোধের দাবিতে আখচাষিদের কল্যাণ সমিতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে। দীর্ঘদিন অর্থ বকেয়া থাকায় চলতি মৌসুমের রোপণ করা আখের পরিচর্যা ও ইরি আবাদের খরচ জোগাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

আখচাষি কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান মন্টু জানান, মোবারকগঞ্জ চিনিকলের কাছে চলতি ২০১৮-১৯ মাড়াই মৌসুমে প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার আখচাষি আখের মূল্য বাবদ ২৫ কোটি টাকা পাবেন। গত জানুয়ারি মাস থেকে কৃষক কোনো টাকা পাচ্ছেন না। বর্তমানে টাকা না পেয়ে আখচাষি পরিবারগুলো মানবেতর জীবনযাপন করছে। তারা মিল কর্তৃপক্ষের কাছে দ্রুত এ টাকা পরিশোধের দাবি জানান।

কৃষক নেতারা আরও জানান, এখন বোরো মৌসুম চলছে। সময়মতো ওই টাকা না পেলে এ আবাদ ব্যাহত হতে পারে।

মোবারকগঞ্জ চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউসুপ আলী শিকদার বলেন, মিলটি বর্তমানে অর্থ সংকটে পড়ায় আখচাষিদের টাকা পরিশোধ করতে পারছেন না। চিনি বিক্রি করতে না পারায় এ সংকট চলছে। ঋণের জন্য প্রধান কার্যালয়ে যোগাযোগ করা হয়েছে। শিগগির কৃষকদের পাওনা পরিশোধের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি।