এসডিজি অর্জনে ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসতে হবে পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশ: ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯     আপডেট: ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের প্রধান শর্ত হলো সবার জন্য সমান সুযোগ তৈরি করা। মানুষের মধ্যে সাম্য তৈরিতে সরকার আরও বেশি কাজ করতে চায়। তবে সরকারের একার পক্ষে বিশাল কাজের বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। বেসরকারি ক্ষুদ্র অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে এ কাজে এগিয়ে আসতে হবে।

গতকাল রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) এবং আর্থিক অন্তর্ভুক্তি অর্জনে ক্ষুদ্র অর্থায়ন সংস্থাগুলোর ভূমিকা বিষয়ক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এসব কথা বলেন। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলোর সংগঠন ক্রেডিট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (সিডিএফ) এ সম্মেলনের আয়োজন করে। সিডিএফ চেয়ারম্যান মুর্শেদ আলম সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান, মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটির (এমআরএ) এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান অমলেন্দু মুখার্জি, ইকোনমিক রিসার্চ গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক ড. সাজ্জাদ জহির, সিডিএফের নির্বাহী পরিচালক আবদুল আউয়ালসহ অন্যরা বক্তব্য রাখেন। সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইনস্টিটিউট ফর ইনক্লুসিভ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (আইএনএম) নির্বাহী পরিচালক ড. মোস্তফা কে মুজেরী।

এম এ মান্নান বলেন, এখন যে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হচ্ছে, তা আগের চেয়ে অনেক বেশি অন্তর্ভুক্তিমূলক। ক্ষুদ্র অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সুযোগ রয়েছে সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের।

ড. আতিউর রহমান বলেন, দেশে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জনে আর্থিক অন্তর্ভুক্তির অবদান রাখছে। সমাজে পিরামিডের নিচতলার মানুষের আয় রোজগার বাড়ছে এবং তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটছে। তিনি বলেন,আর্থিক অন্তর্ভুক্তির লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নেওয়া সৃজনশীল উদ্যোগগুলো যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে।