বর্তমানে শতভাগ বিদেশি মালিকানার কোম্পানি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমোদন ছাড়াই পরিশোধিত মূলধন ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত বাড়াতে পারে। সম্প্রতি এক গেজেট জারি করে বিদেশি কোম্পানিকে এ সুবিধা দেওয়া হয়েছে। এখন স্থানীয় ও যৌথ মালিকানার কোম্পানির ক্ষেত্রেও এই সুবিধা দেওয়ার দাবি তুলেছেন উদ্যোক্তারা।

গত রোববার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বেসরকারি খাত উন্নয়ন নীতি সমন্বয় কমিটির ১২তম সভায় ব্যবসায়ীরা এ দাবি করেছেন বলে ব্যবসা উন্নয়ন বিষয়ক প্রতিষ্ঠান বিল্ডের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধানমন্ত্রীর শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশে নিবন্ধিত ১০ কোটি টাকার বেশি পরিশোধিত মূলধন রয়েছে এমন কোম্পানির মূলধন বাড়াতে হলে বিএসইসির অনুমোদন নিতে হয়। সে কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত না হলেও এ অনুমোদন নেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। নতুন কোম্পানি আইনে বিষয়টির এ বাধ্যবাধকতা তুলে নেওয়ার প্রস্তাব করেছেন ব্যবসায়ীরা। যে আইন শিগগিরই চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে সভাকে জানিয়েছেন বাণিজ্য সচিব মো. মফিজুল ইসলাম।

সভায় বিজনেস ইনিশিয়েটিভ লিডিং ডেভেলপমেন্ট বা বিল্ড চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের রফতানি প্রতিযোগিতায় সমস্যা ও সম্ভাবনা, ভ্যাট আইন-২০১২ ও এর বাস্তবায়ন এবং রফতানিতে নগদ সহায়তার নীতি সহায়তা বিষয়ক আলাদা প্রবন্ধ উপস্থাপন করে। উপস্থাপনায় সাভার চামড়া শিল্পনগরীতে সিইটিপি ব্যবহারের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। পাশাপাশি তৈরি পোশাক ও চামড়াজাত পণ্যের প্রণোদনার তুলনা তুলে ধরা হয়।

সভায় প্রধানমন্ত্রীর শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, প্রতিটি কোম্পানিকে আলাদা আলাদা ইটিপি স্থাপনের চাপ দেওয়ার যৌক্তিকতা নেই। তিনি ওষুধ শিল্প খাতের উদাহরণ দিয়ে বলেন, কেন্দ্রীয়ভাবে ইটিপি করা যেতে পারে, যেখানে উদ্যোক্তারা নিজস্ব স্বার্থেই সম্পৃক্ত হবেন। নজিবুর রহমান ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার বলেন, সব খাতেই প্রণোদনা দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। সভায় এফবিসিসিআই, ডিসিসিআই, এমসিসিআই, এফসিসিআইর প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন খাতের ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় চামড়া ও পাদুকা প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির সভাপতি সাইফুল ইসলাম চামড়া খাতের জন্য নীতিমালা তৈরিতে একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিটি গঠনের প্রস্তাব করেন।

মন্তব্য করুন