জনশুমারিতে নেওয়া হবে স্যাটেলাইটের সহায়তা

প্রকাশ: ১১ জুলাই ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

দেশে ষষ্ঠ জনশুমারি হবে ২০২১ সালে। এ শুমারিতে লোক গণনায় প্রথমবারের মতো স্যাটেলাইটের সহায়তা নেওয়া হবে। স্যাটেলাইটের ছবি ব্যবহার করে প্রত্যন্ত বা দুর্গম এলাকার খানা চিহ্নিত করে গণনার আওতায় আনা হবে। এর মাধ্যমে দেশের প্রতিটি নাগরিককে গণনায় আনা যাবে বলে মনে করছে বিবিএস।

গতকাল বুধবার জনশুমারির তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে এক কর্মশালার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়। আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) ভবনের মিলনায়তনে দু'দিনের কর্মশালার উদ্বোধন করেন পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্র নাথ চক্রবর্ত্তী। বিবিএস মহাপরিচালক ড. কৃষ্ণা গায়েন, শুমারি প্রকল্পের পরিচালক জাহিদুল হক সরদারসহ কর্মকর্তারা এতে অংশ নেন।

শুমারির প্রশ্নপত্র তৈরি এবং শুমারি-পরবর্তী আর্থ-সামাজিক ও জনতাত্ত্বিক কাজ সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে এ কর্মশালার আয়োজন করে বিবিএস। এ সময় আরও জানানো হয়, স্যাটেলাইটে ইমেজ দেখে জনশুমারিতে সারাদেশে চার লাখ গণনাকারী তথ্য সংগ্রহ করবেন। এ পদ্ধতিতে দেশের একটি খানাও (পরিবার) বাদ পড়বে না। এ ছাড়া শিক্ষিত বেকারদের জনশুমারি প্রকল্পে কাজ করার সুযোগ দেওয়া হবে। একজন গণনাকারী ১০০ খানার তথ্য সংগ্রহ করবেন। এর মাধ্যমে এক সপ্তাহে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা আয় করবেন তারা।

২০২১ সালের ১৭ মার্চ রাত ১২টাকে শুমারিমুহূর্ত ধরে পরবর্তী সাতদিন জনশুমারি ও গৃহগণনা করা হবে। শুমারি বিষয়ে জনসচেতনা বাড়াতে এক বছর আগে থেকে অর্থাৎ ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ষষ্ট জনশুমারির কাউন্ট ডাউন (দিন গণনা) শুরু করা হবে।

সচিব বলেন, বিভিন্ন দেশে প্রবাসী বাংলাদেশিদেরও গণনার আওতায় আনা হবে। এ ছাড়া এদেশে অবস্থান করা বিদেশি নাগরিকদেরও গণনা করা হবে শুমারিতে। তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশে প্রায় এক কোটি প্রবাসী বসবাস করছেন। সবচেয়ে বেশি ২৫ লাখ প্রবাসী রয়েছেন সৌদি আরবে।