ইডিএফের আদলে হচ্ছে ইউরো ফান্ড

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর মুদ্রা ইউরো দিয়ে রফতানি উন্নয়ন তহবিলের (ইডিএফ) আদলে নতুন একটি তহবিল গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ তহবিল থেকে ব্যাংকগুলোর অফশোর ব্যাংকিং ইউনিটকে (ওবিইউ) ঋণ দেওয়া হবে। ১ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সূত্র জানায়, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার মজুদে ডলারের পাশাপাশি অন্যান্য বৈদেশিক মুদ্রাও রয়েছে। অন্যান্য মুদ্রার মধ্যে ইউরোর পরিমাণ বেশি। বাংলাদেশ ব্যাংক এসব ইউরো দেশের ব্যাংকগুলোর অফশোর ব্যাংকিং ইউনিটে বিনিয়োগ করতে চায়। এ জন্য রিজার্ভের ইউরো থেকে ইডিএফের আদলে একটি তহবিল গঠন করার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তহবিল পরিচালনার জন্য শিগগির একটি নীতিমালা করা হবে। এর ঋণের সীমা, সুদহার, মেয়াদ নীতিমালার মাধ্যমে নির্ধারিত হবে।

প্রসঙ্গত, ইডিএফ রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানকে অর্থায়নের সহায়তার জন্য একটি তহবিল, যা ডলারে পরিচালিত হয়। পরবর্তীতে ইউরোর পাশাপাশি অন্যান্য বৈদেশিক মুদ্রায় ঋণ দেওয়ার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত রয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের।

বর্তমানে দেশে বছরে প্রায় ৬ হাজার কোটি ডলারের আমদানি হয়। এর মধ্যে প্রায় ৫০ কোটি ডলারের এলসি খোলা হয় সরাসরি ইউরোতে। এর বড় অংশই খোলা হয় ব্যাংকগুলোর ৩২টি ওবিইউ থেকে। সাধারণত ওবিইউগুলো বিদেশি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়ে দায় পরিশোধ করে। এজন্য বাংলাদেশ ব্যাংক চায় রিজার্ভে জমা থাকা ইউরো বিনিয়োগ করতে। ৩ জুলাইয়ের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার মজুদের পরিমাণ তিন হাজার ১৬৪ কোটি ডলার। এর মধ্যে ৫০ কোটি ডলারের বেশি পরিমাণ ইউরো রয়েছে।

বর্তমানে বৈদেশিক মুদ্রার স্বল্পমেয়াদি ঋণে (ইউপাস) যেসব এলসি খোলা হচ্ছে, সেগুলোর বেশিরভাগই ওবিইউগুলো খুলে থাকে। মূলধনী যন্ত্রপাতি, প্রস্তুত পণ্য, শিল্পের কাঁচামাল ইত্যাদি ইউপাস ব্যবস্থায় আমদানি হচ্ছে।